অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য?

আমাজন অ্যাফিলিয়েট নিয়ে অনেক মানুষের আগ্রহ, এটা দেখে ভালই লাগছে, আশা করছি ভালোকিছু প্রফেশনাল নিয়ে এই সেক্টরে আমরা একটা বিপ্লব ঘটাতে পারবো, ইনশাআল্লাহ্‌, তবে আমার এই পোস্টের আসল উদ্দেশ্য হচ্ছে কিছু ব্যসিক বিষয়ে “হুজুগে বাঙ্গালিদের ” জানিয়ে দেয়া। এইবার আসি বাংলাদেশের মানুষদের জন্য মূল মূল কিছু পয়েন্টে।
প্রশ্নঃ অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য ভালো হবে?
উত্তরঃ
১। যাদের কিছু ইনভেস্ট করার সক্ষমতা আছে, ৪০০০০-১০০০০০ টাকা প্রতিটা নিস সাইটের জন্য,অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য (3) নিজে কাজ না করলে আরো বেশি টাকার দরকার হবে, যার নিশ যত বড় মানে যত কম্পিটিভ তার ইনভেস্ট দরকার হবে তত বেশি। খরচের একটা তালিকা দিয়ে দিলাম।

খরচের একটা তালিকা দিয়ে দিলাম। মনেকরুন সব কাজ আউটসোর্স করবেন ( মানে আমাকে হায়ার করবেন নিস সাইট করার জন্য 😛 ) তাহলে আপনাকে যেই যেই খরচ গুলি করতে হবে, আমি এখানে মিনিমাম হিসাব দেয়ার চেস্টা করবো।

  • কিওয়ার্ড রিসার্চ (there will be total 1+10+ 25= 35 keywords) = $150
  • ডোমেইনহোস্টিং for 1 year= $40
  • ওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট with basic graphic work: $300
  • কন্টেন্ট রাইটিং 70-100 Articles minimum, 300-3000 word/per article, if you calculate average 400 words each article, then per 400-word article cost will be $4 ( minimum), so 100*4$= $400
  • ব্যসিক সোশাল মিডিয়া setup= $50
  • ব্যসিক ইউটিউব মার্কেটিং = $50
  • ফোরাম মার্কেটিং = $50
  • ব্লগমার্কেটিং = $50
  • h. Web 2.0 siteDevelopment= $100
  • i. Total লিঙ্ক বিল্ডিং (Directory, Q/A Site Backlinks, Content Marketing, WikiBacklinks, Guest Posting, Resource Link Outreach, Image Backlink, Press Release and so on)= $300

এখানে আমি মোটামুটি $১২০০ কাজের একটা লিস্ট দিলাম, যা কিনা মিডিয়াম মানের প্রফেশনাল হিসাবে যেই কেউ দাবি করবে, আরো হাই লেবেলের প্রফেশনাল হলে খরচ আরো বাড়বে, এখানে যেই খরচের লিস্ট দিলাম, তা আমার কাছে মিনিমাম মনে হয়েছে, এখন কথা হলো যেই যেই কাজ আপনি নিজে নিজে করবেন ওই খরচ বাদ দিয়ে দিন, তারপর আপনার কত খরচ হবে ক্যাল্কুলেশন করে নিন। এছাড়া আরো $২০০ ধরে রাখুন সফটওয়্যার কিনার জন্য অবশ্য এটা ওয়ান টাইম, কিছু আছে রিকারিং।
২। যারা মিনিমাম প্রফিট আসার জন্য মানে সেল পাওয়ার জন্য ৩-৬ মাস অপেক্ষা করতে পারবেন মানে যাদের এই পরিমান ধৈর্য আছে তারা আসুন এই ফিল্ডে। শুধু ধৈর্য নিয়ে বসে থাকলে হবে না, ফুল টাইম নিজে কাজ করতে হবে বা অন্যকে দিয়ে করাতে হবে।

৩। যারা একটা নিশ সাইটের জন্য ৩-৬ মাস অল্মস্ট ফুল্টাইম নিজে কাজ করতে পারবেন অথবা কাউকে দিয়ে ফুল টাইম কাজ করাতে পারবেন।
অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য (2)
প্রশ্নঃ কোথায় শিখবেন বা কীভাবে শুরু করবেন?
উত্তরঃ

আসলে অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট করতে হলে মোটামুটি অনেক কিছু জানতে হবে আপনাকে, যেমনঃ কি ওয়ার্ড রিসাস, ব্যাসিক এস এই ও, ব্যসিক ওয়েবসাইট ডেভেলাপমেন্ট অন্তত ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে সাইট তৈরি, তারপর সাইটের ব্যাসিক গ্রাপিক ডিজাইন, এস ই ও করে ভিজিটর আনা, অনলাইন মার্কেটিং করে ভিজিটর ধরে রখা, সবচেয়ে দরকার হলো কন্টেন্ট লিখা বা অন্যকে দিয়ে লিখানোর অভিজ্ঞতা (এটার জন্য দরকার হবে আপনার ৬৫% ইনভেস্টমেন্ট)

তাই এর জন্য আমি সাজেস্ট করি, এক্সপার্ট কারো কাছে যাওয়া, যিনি বা যানারা বর্তমানে এই ফিল্ডে কাজ করে টাকা ইনকাম করছেন এমন কারো কাছে যাওয়া, যারা রিয়েল প্রুফ দেখাতে পারবেন তবে চাপাবাজদের কাছে যাবেন না, কেউ ভুয়া প্রমান দেখালে সন্দেহ হলে আমাদের কাছে আসবেন 😛 তবে অ্যামাজন এফিলিয়েশনে যেহেতু অনেক অনেক কাজ তাই আমি সাজেস্ট করি গ্রুপ ওয়ার্ক, আলামিন ভাই ৮-১০ জনের টিম নিয়ে গ্রুপ ওয়ার্ক করেই ভালো পজিশনে, আমি শুরু করেছি ৭-৮ জনের টিম নিয়ে আমার জন্য দোয়া করবেন চাইলে আমার টিমে আপনিও আসতে পারেন, টিমে কাজ করলে সবাই সমানভাবে উপকৃত হবো, আরো কিছু সিক্রেট বেনিফিট আছে, যা কিনা গ্রুপ মেম্বারদের জন্য 😛

প্রশ্নঃ এই ফিল্ডের সম্ভাবনা কি রকম?

উত্তরঃ

এই প্রশ্নের উত্তর টা আমি আমাকে দিয়েই দিচ্ছি,
আমি আগামী ৬-১২ মাস শুধু এই ফিল্ডেই কাজ করবো, ইনশাআল্লাহ্‌, কারন আমি চাই কাজ না করে ইনকাম, আমি চাই আগামী ১২-২৪ মাসে আমার ইনকাম হবে ৫কে হতে ১০ কে প্রতিমাসে, ইয়েস এটা সম্ভব, অনেকেই করছেন, প্যাসিভ ইনকামের এর চেয়ে ভালো ফিল্ড হয়তো আছে কিন্তু আমার ৫ বছরের অনলাইনের কাজের অভিজ্ঞতায় জানা নেই, আপনাদের জানা থাকলে দয়া করে আমাকে জানাবেন, আরেকটা কথা আমরা চেস্টার মালিক দেয়ার মালিক উপরওয়ালা।

অনেকেই চিন্তা করছেন ৪০,০০০/ ৫০,০০০ টাকা বিনিয়োগ? আবার ৬ মাস-১বছর কাজ? এতো কিছু? এটার আউটকাম কি? যারা এমন চিন্তা করছেন তাদের জন্য কিছু পজেটিভ আর নেগেটিভ তুলে ধরলাম।

পজেটিভঃঅ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য (3)

১। খুব অল্প সময়ে প্যাসিব ইনকামে যাওয়া সম্ভব, ২ বছরের মধ্যেপ্রতি মাসে ২০০ ডলার থেকে ১০০০০ ডলারে যাওয়া সম্ভব। এই দুইটা সাইটের ইনকাম রিপোর্ট দেখুন,

http://www.cloudliving.com/mike-bradford-success-story/

http://www.passionintopaychecks.com/how-an-amazon-niche-site-made-me-16843-01-in-one-year-3/

এই রকম অনেক গুলি দেয়া যাবে, লাগলে বলবেন।

২।  রিস্ক ফেক্টর অনেক কম, ২০/৩০% মানে ১০ টা সাইটের মধ্যে হয়তো ২/৩ টা সাইটের ইনকাম আসবে না, তার মানে হচ্ছে মাক্সিমাম সাইটের আসবে,যেই ২/৩ টা সাইটের আসবেনা তা হচ্ছে কাজের ভুলের কারনে, ধরে রাখতে পারেন সিস্টেম লস, এটা সব বিজনেসে থাকে।

৩। আমার জানামতে প্যাসিভ ইনকামের সবচেয়ে ভালো উপায় এটা। প্যাসিভ ইনকামের এর চেয়ে ভালো ফিল্ড হয়তো আছে কিন্তু আমার ৫ বছরের অনলাইনের কাজের অভিজ্ঞতায় জানা নেই, আপনাদের জানা থাকলে দয়া করে আমাকে জানাবেন, আমি যেই ৮ টা জানি তা হলো

  1. Affiliatemarketing.
  2. Start afreelancebusiness.
  3. Networkmarketing.
  4. Fleamarkets.
  5. Investments.
  6. Realestate.
  7. Royalties.
  8. Participate in surveys and paid focus groups.

তবে আমার কাছে আফিলিয়েশনের মধ্যে অ্যামাজন বেস্ট, কেনো বেস্ট তা অন্য একটা পোস্টে বলার চেস্টা করবো।অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য (1)

৪। প্রফিটের পরিমান অনেক বেশি, ট্র্যাডিশনাল বিজনেস চিন্তা করুন, ১ লাখ টাকায় আপনি মাসে কতো পাবেন? মাক্সিমাম ১০,০০০? কিন্তু এই বিজনেসে মাসে ১ লাখ টাকায় ১লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব, তাও আবার কন্টিনিয়াস ভাবে প্রতি মাসে, যার প্রমান আমি উপরে দিয়েছি।

৫। ধরে নিলাম ৫০,০০০ ইনভেস্ট করে আপনার ইনকাম আসলোনা, তবে গ্রুপে কাজ করলে আপনি যেই কাজ গুলি শিখবেন,বিশেষ করে রিয়েল লাইফ ইন্টারনেট মারকেটিং ( AA, এস ই ও, এস এম এম ) যা দিয়ে আপনি লাইফটাইম চাকরী করে খেতে পারবেন।

৬। আর প্যাসিব ইনকামের অন্য ব্যাপার গুলি নাই বললাম, লাইফ টাইম ইনকাম, বসে বসে ইনকাম, ঘুরতে ঘুরতে ইনকাম,ওই গল্প আপনারা ভালো জানেন আমার চেয়ে, না জানলে নেট থেকে দেখে নিতে পারেন।

 

নেগেটিভঃ

১। গুগুল পেনাল্টি, এটা হবেনা আপনি যদি স্প্যমিং না করেন, তার মানে আপনি চাইলে এটা থেকে বাঁচা সম্ভব।

২। কিছু ইনভেস্টমেন্ট,এই অল্প পরিমান আপনি যদি ইনভেস্ট করতে না পারেন,  পাসিভ ইনকামের চিন্তা বাদ দেন, একটা চাকরী জোগাড় করে সুখে শান্তিতে থাকেন আর প্রতি বছর দুইটা করে বাচ্ছা পয়দা করেন 😛 ( সাবধান!বিয়েরপর কিন্তু 😛 :D)

৩। অনেক বেশি কাজ? ৬ মাস থেকে ২ বছর একটু বেশি পরিশ্রম করতে না পারলে আপনার জন্য ২ নাম্বার পদ্ধতি 😛

নিছে কিছু রিসোর্স দিয়ে দিলাম যা এই ফিল্ডে নতুন আসা লোকদের অবশ্যই অবশ্যইজানা দরকার।

1. প্রথমেই এইলিঙ্কে যান ব্যসিক প্রশ্ন গুলি জানার জন্য,https://affiliate-program.amazon.com/gp/associates/join/faq.html

2. Associates Program Participation Requirementshttps://affiliate-program.amazon.com/gp/associates/help/operating/participation/

3. এই লিঙ্কে দেয়াআছে কীভাবে একাউন্ট করবেন, http://www.wikihow.com/Become-an-Amazon-Associate অথবা এই ভিডিওটা দেখতে পারেন, https://www.youtube.com/watch?v=QLVc1kiETIE

কাজের মাধ্যমেসবার জীবন ভালো কাটুক, এই দোয়া আপনাদের জন্য।

A strong man can not help a weaker unless that weaker is willing to be helped. And even then the weak man must become strong of himself. He must, by his own efforts develops the streets which he admires in another. None but himself can alter his condition.

সুত্রঃ মাহবুব ওসমানি

 

4 thoughts on “অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন কাদের জন্য?

  • ডিসেম্বর 28, 2015 at 12:09 অপরাহ্ন
    Permalink

    Thanks to author Mahbub Osmane to write such an inspirational article for the people who like to start earning through Amazon affiliate and simultaneously I would like to thank TechMasterBlog to publish the outstanding article. I hope both Mahbub Osmane and TechMasterBlog will contribute more for the people who are interested to earn from outsourcing.

    Reply
  • ডিসেম্বর 25, 2015 at 3:20 পূর্বাহ্ন
    Permalink

    এই লেখাটা আসলে নতুনদের নিরুৎসাহিত করবে। মাহবুব ওসমানী কখনও অ্যামাজন এফিলিয়েট এর মডেল হতে পারেনা।

    Reply
  • ডিসেম্বর 24, 2015 at 4:12 অপরাহ্ন
    Permalink

    Great post man. Love & learn manythings

    Reply
  • ডিসেম্বর 24, 2015 at 3:07 অপরাহ্ন
    Permalink

    এই লিংকে গিয়ে আরো ভালো ভাবে দেখতে পারেন।

    Reply

আপনার মতামত ...