অ্যান্ড্রয়েড আইওএস উইন্ডোজ কোনটি সেরা?

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে স্মার্টফোনের বাজার বিশ্বব্যাপি বড় হচ্ছে। সাথে বাড়ছে স্মার্টফোনের প্রতি গ্রাহকের চাহিদা। গ্রাহকদের সাথে তাল মিলিয়ে স্মার্টফোনের বাজার দখলে যুদ্ধ করে যাচ্ছে স্মার্টফোন নিমার্তা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল, স্যামসাং, এলজি, সনিসহ আরও প্রতিষ্ঠানগুলো। এই স্মার্টফোনগুলো চলার জন্য প্রয়োজন অপারেটিং সিস্টেমের। গ্রাহকদের সুবিধা দিতে বর্তমান বাজারে চলমান অ্যান্ড্রয়েড আইওএস উইন্ডোজ কোনটি সেরা? তা নিয়ে রয়েছে নানা মতবাদ। গ্রাহকদের সুবিধার জন্য তিনি অপারেটিং সিস্টেমে সম্পর্কে তুলে ধরা হলো।


ইন্টারফেইস:


ইন্টারনফেইস দেখেই মূলত স্মার্টফোনের ওএসের প্রতি আগ্রহ হয় গ্রাহকদের। ইন্টারফেইসের দিক দিয়ে উইন্ডোজ, অ্যান্ড্রয়েড ও আইওস সম্পূর্ণ ভিন্ন। অ্যান্ড্রয়েড ও্‌এসে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনে ভিন্ন ইন্টারফেইস থাকে। প্রতিষ্ঠান গুগলো ইউজার ইন্টারফেইস নিজেদের মত করে তৈরি করে নেয়। তবে কার কাছে কি ধরনের ইন্টারফেইসব পছন্দ তা নির্ভর করে গ্রাহকদের চাহিদা ও পছন্দের উপর।

Untitled


অ্যাপ:


স্মার্টফোনের জনপ্রিয়তার অন্যতম প্রধান কারণ অ্যাপ্লিকেশন। তিনটি অপারেটিং সিস্টেমে্‌ই রয়েছে অ্যাপ্লিকেশনের মার্কেট। সেখান থেকে গ্রাহকরা অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করে ব্যবহার করা পারে। তবে থার্ড পাটি অ্যাপ্লিকেশনের ক্ষেত্রে অ্যান্ড্রয়েড এগিয়ে রয়েছে।এই ওএসটিতে রয়েছে অ্যাপ্লিকেশনের বিশাল ভান্ডার।


ব্যাটারি লাইফ:


স্মার্টফোনের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ব্যাটারি লাইফ। অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের অভিযোগ থাকে স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ কম থাকে। ফলে প্রায় বিপাকে পড়তে হয়। তাই অ্যান্ড্রন্ডেড ৬.০ সংস্করণে রয়েছে বিশেষ ব্যাটারি সেইভ মুড। আইওএসে অধিক সময় ব্যাটারি সুবিধা দিতে রয়েছে বিশেষ মুড।


ওএস আপডেট:


অপারেটিং সিস্টেমের জগতে নিত্য নতুন আপডেট দিতে এগিয়ে আসে অ্যাপল। প্রতিষ্ঠানটির পুরানো ডিভাইসগুলোও নতুন আপডেট পেয়ে থাকে। এক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে অ্যান্ড্রয়েড। অ্যান্ড্রয়েডের নতুন আপডেট সংস্করণ থেকে বঞ্চিত হয় অনেক পুরানো ডিভাইসগুলো।


কাস্টমাইজ সুবিধা:


 

আপনার স্মার্টফোনটিতে যদি নিজের সুবিধামত কাস্টমাইজ করতে চান তাহলে আপনার জন্য অ্যান্ড্রয়েড ওএস। কেননা এই অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যবহার করে স্মার্টফোনটিতে নিজের মত করে নেয়া যাবে। যা অ্যাপলেল আইও্‌এস ও উইন্ডোজ ফোনে সম্ভব নয়।


ডিভাইসের মূল্য:


ডিভাইসের মূল্য যদি গ্রাহকদের সুবিধামত না হয় তাহলে সেই ডিভাইস ব্যবহারকারীরর সংখ্যা কমতে থাকে। তাই ডিভাইসের মূল্য বড় একটি ব্যাপার।  এক্সেত্রে এগিয়ে আছে অ্যান্ড্রয়েড। সাশ্রয়ী দামে অ্যান্ড্রয়েডের অণেক ডিভাইস বাজার পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু আইওএস ও উইন্ডোজ ফোনের ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসগুলোর দাম বেশি হয়ে থাকে।


সর্বশেষ:


এটি বলা কঠিন যে কোন অপারেটিং সিস্টেমটি সেরা। কেননা গ্রাহক পর্যায়ে না নির্ভর করে তাকে। তবে তথ্যমতে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীর সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বেশি। বাংলাদেশের বাজারেই তিনটি অপারেটিং সিস্টেমের স্মার্টফোন  বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। গ্রাহকরা চাইলে বাসার বাহিরে না গিয়ে বসে বসেই Ajkerdeal,kaymu, daraz,clickbd থেকে মোবাইল কিনে নিতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.