ইন্টেল এর ২২ কোর এর প্রসেসর

প্রসেসর নিয়ে ঘাটাঘাটি করতে গিয়ে যারা এএমডির কোরের সংখ্যা দেখে আফসোস করতেন-

ইস, আমার যদি ওই ৮কোর কিংবা ১৬ কোরের একটা প্রসেসর থাকতো কতইনা ভালো হত। তাদের হতাশার দিন ফুরাতে ইন্টেল বাজারে এনেছে সর্বকালের সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ইন্টেল প্রসেসর। প্রসেসরটির কোরের সংখ্যা ২২!
২২ কোরের প্রসেসর

আপনার পিসিতে থাকা ইন্টেলের ৪র্থ কিংবা ৬ষ্ঠ প্রজন্মের কোর আই ৫ কিংবা কোর আই ৭ এর ক্ষমতা সম্পর্কে একবার নেট ঘেঁটে দেখুন। কোয়াড কোর আই ৫ ও আট কোরের কোর আই ৭ সম্বলিত পিসি কতইনা দ্রুত কাজ করে। অনেকেই বন্ধুর কম্পিউটারে অত্যাধুনিক ইন্টেলের প্রসেসর দেখে ভাবি, ইস আমার যদি এইরকম প্রসেসর দিয়ে একটি পিসি থাকতো।

ভাবনার দিন শেষ, এবার প্রযুক্তি বিস্ময়ের দিন।২২ কোরের প্রসেসর আনছে ইন্টেল!  যার মূল্য প্রায় সাড়ে ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা! 

 

সাড়ে ৪ লাখ টাকার ইন্টেল প্রসেসর

 

ইন্টেলের জিয়ন সিরিজের সার্ভার গ্রেডের সম্ভাব্য নাম ই৫-২৬০০ ভার্সন ৪ প্রতিটি প্রসেসরে রয়েছে ৪৪টির বেশি থ্রেড!! অবাক লাগছে? যারা প্রসেসরের থ্রেডের কাজ সম্পর্কে জানেন তাদের সত্যি সত্যি চক্ষু কপালে উঠে গেছে আর যাদের সার্ভার কম্পিউটারের মেইন-বোর্ড ও থ্রেড দুটি সম্পর্কেই ধারণা আছে তাদের অবস্থার কথা বাদই দিলাম। সার্ভার কম্পিউটারের মেইন-বোর্ড আগে না দেখে থাকলে নিচের ছবিতে খেয়াল করুন।

সার্ভার মেইনবোর্ডদেখে বুঝতেই পারছেন ১৬টি র‍্যাম আর দুইটি প্রসেসর ব্যবহারের জন্য বিশাল বোর্ড! তাহলে হিসাব করে দেখুন ২ টি ই৫-২৬০০ ভার্সন ৪ প্রসেসর লাগালে ২২*২= ৪৪ কোর+ ৪৪*২= ৮৮ থ্রেড !!  ভালো করে হিসাব করলে বলা যায় সার্ভারগুলোর ক্ষমতা সুপার কম্পিউটারের দিকে ধাবিত হচ্ছে।

কিন্তু ইন্টেল এখনও প্রসেসরটি তাদের ওয়েবসাইটের আর্ক পণ্যের তালিকাতে যুক্ত করেনি। পিসি ওয়ার্ল্ড থেকে পাওয়া তথ্যমতে প্রসেসরটির

  • কোরের সংখ্যা ২২টি কিংবা তার বেশি
  • ক্লক স্পিড ২.২গিগাহার্জ
  • ৫৫ মেগাবাইট ক্যাশ
  •  ডিডিআর ফোর ২৪০০ বাস গতির মেমোরি সাপোর্ট করে
  • প্রতিটি প্রসেসর সর্বোচ্চ ১২টি র‍্যাম নিয়ে একত্রে কাজ করতে পারে, অর্থাৎ যদি প্রতিটি র‍্যাম স্লটে ৩২ জিবি করে ১২ টি র‍্যাম লাগানো হয় তাহলে র‍্যামের হিসাব দাঁড়াবে ৩৮৫ জিবিতে!
  • প্রতিটি কোরের জন্য ব্যয় করতে হবে প্রায় ১৫,০০০ টাকা!
  •   পাওয়ার কনজাপ্সন ১৪৫ ওয়াট পার আওয়ার

117521-intel-xeon-e5-2600-v4-01

মেহেদী হাসান পলাশ

Mehedi Hasan Polash ভালোবাসি প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে ও জানাতে, এই ভালো লাগা থেকেই যোগ দেওয়া প্রযুক্তি ব্লগিংয়ে। পাশে পেয়েছি টেকমাস্টার ব্লগ কমিউনিটি, দিকনির্দেশনা দিতে শ্রদ্ধেয় মেজবা উদ্দিন ভাই। ব্লগিং জগতের সবচেয়ে বড় যে পাওয়া তা হচ্ছে তথ্য, ব্লগিং এর জন্য প্রতিদিনই নিজেকে বেশি বেশি তথ্য জানতে হচ্ছে যা অনেকটা নেশার মত হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর জীবনটাই তো শেখার জন্য, জানার জন্য। বর্তমানে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম ও মার্কেটিং উভয় বিষয়ে (বিবিএ) অধ্যায়নরত। প্রয়োজনে যোগাযোগ ফেইসবুকে- মেহেদী হাসান গুগল প্লাস

আপনার মতামত ...