দেশীয় ডিজিটাল নিরাপত্তায় আসছে সরকারী দুই সংস্থা

দেশের মধ্যকার সংঘটিত কম্পিউটার, নেটওয়ার্ক, মুঠোফোন ইত্যাদি দ্বারা সংঘটিত অপরাধ দমনে দুটি ডিজিটাল সংস্থা খুলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। সংস্থাগুলো সাইবার অপরাধসহ বিভিন্ন অপরাধ এর তদন্ত ও এসব খাতের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে। সংস্থা দুটির নাম হবে জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সি’ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি। 

digital-1

নতুন দুই সংস্থার জন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৬ নামে এক খসড়া তৈরী  করেছে টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। খুব দ্রুতই মন্ত্রীসভার উত্থাপিত হবে এবং মন্ত্রীসভার সম্মতি পাওয়ার সাথে সাথেই কাজ শুরু হবে। সংস্থাদুটির গঠন সম্পর্কে পুরোটা পরিষ্কার না হলেও জানা গেছে যে ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিলের সভাপতি হবেন প্রধানমন্ত্রী। আর ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির প্রধান হবেন একজন মহাপরিচালক।

এই সংস্থাদুটি বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও নিরাপত্তা প্রদান করবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির মত ঘটনার পর এ ধরনের সংস্থার কথা ভাবছে সরকার। তবে এ ধরনের এজেন্সির বা নিরাপত্তা সংস্থার ক্ষমতা কতটুকু হবে তা এখনো জানা যায়নি। তবে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে ডিজিটাল যেকোনো অপরাধের ক্ষেত্রেই কার্যকরী হবে এ সংস্থা।

উদয়

সবার মধ্যেই কিছু না কিছু থাকে,সেই কিছু খোজার প্রচেষ্টাতেই আছি। ভালো লাগে টেকনোলজি,তাই টেক-মাস্টারব্লগের সাথে সম্পৃক্ততা ।

আপনার মতামত ...