আইফোন বাঁচালো শিশুর জীবন

গত বছর আমেরিকায় এক কিশোরীকে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচানোর পর এবার আবারও অ্যাপল আইফোনের ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট “সিরি” বাঁচালো অস্ট্রেলিয়ায় এক শিশুর জীবন।

স্ট্যাসি গ্লীসনের মাত্র এক বছরের বাচ্চাটি হটাৎ করেই শ্বাস নিচ্ছিল না। অ্যাম্বুলেন্স কল করতে তিনি দ্রুত ছুটে যান আইফোনের কাছে। এসময় তার হাত থেকে আইফোনটি মেঝেতে পড়ে যায়।

আইফোন বাঁচালো শিশুর জীবন

ফোন নিচ থেকে না তুলেই মেয়ের শ্বাস-প্রশ্বাস চালু রাখতে মুখে মুখ দিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যায় স্ট্যাসি গ্লীসন। একই সময়ে তিনি তার আইফোনের দিকে চিৎকার করে ‘সিরি’ প্রোগ্রাম সচল করেন এবং স্পীকারফোনে ইমারজেন্সি অ্যাম্বুলেন্স নাম্বারে কল করার নির্দেশ দেন। মেয়ের শ্বাস চালু রাখার সাথে সাথে তিনি স্পীকারফোনে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা এবং কথাবার্তা চালিয়ে যেতেও সক্ষম হন।

ভয়েস কমান্ড দিয়ে যে কোন কিছু করতে বলা যায় সিরিকে। আইফোনের কাছাকাছি যে কোন জায়গা থেকে “হেই সিরি” বললেই সিরি সচল হয়। মোবাইলের অ্যাপস, গান, ইন্টারনেট সার্চ, কল করা সহ আরও অনেক কাজই করতে পারে সিরি।

মিস গ্লিসনের মাত্র এক বছর বয়সী শিশুকন্যা ‘জিয়ানা’ এখন পুরোপুরি সুস্থ। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, তার জীবন রক্ষায় ঐ সময়ের প্রতিটি সেকেন্ড ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই জিয়ানার মা স্ট্যাসি গ্লীসন বিবিসিকে জানিয়েছেন, সিরির ফলেই হয়তো তিনি তার মেয়ের জীবন বাঁচাতে সক্ষম হয়েছেন।

অ্যাপলের অত্যাধুনিক আর্টিফিশিয়াল ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট “সিরি” এর আগেও রক্ষা করেছিল গাড়ির চাকায় পা চাপা পড়া এক কিশোরীর জীবন।

মেহেদী হাসান পলাশ

Mehedi Hasan Polash ভালোবাসি প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে ও জানাতে, এই ভালো লাগা থেকেই যোগ দেওয়া প্রযুক্তি ব্লগিংয়ে। পাশে পেয়েছি টেকমাস্টার ব্লগ কমিউনিটি, দিকনির্দেশনা দিতে শ্রদ্ধেয় মেজবা উদ্দিন ভাই। ব্লগিং জগতের সবচেয়ে বড় যে পাওয়া তা হচ্ছে তথ্য, ব্লগিং এর জন্য প্রতিদিনই নিজেকে বেশি বেশি তথ্য জানতে হচ্ছে যা অনেকটা নেশার মত হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর জীবনটাই তো শেখার জন্য, জানার জন্য। বর্তমানে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম ও মার্কেটিং উভয় বিষয়ে (বিবিএ) অধ্যায়নরত। প্রয়োজনে যোগাযোগ ফেইসবুকে- মেহেদী হাসান গুগল প্লাস

আপনার মতামত ...