বিল গেটসের হাতে অ্যানড্রয়েড!

এই সপ্তাহে এক তথ্যে পাওয়া যায়, মাইক্রোসফট এর সহ প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস অ্যানড্রয়েড ফোন ব্যবহার করছেন। যদিও তার মাইক্রোসফট কোম্পানির নিজস্ব উইন্ডোজ মোবাইল আছে!

তার এই পরিবর্তন প্রসঙ্গে তিনি ফক্স নিউজ কে বলেন যে, তিনি যে অ্যানড্রয়েড ফোন ব্যবহার করছেন তাতে অনেক মাইক্রোসফট ভিত্তিক সফটওয়্যার আছে। অর্থাৎ তিনি তার দৈনন্দিন কাজে মাইক্রোসফট এর বিভিন্ন পরিসেবাগুলোকেই ব্যবহার করছেন। তার পরিবর্তনের মূল উদেশ্য হল মাইক্রোসফট এপ এবং সেবার ব্যবহারের মাধ্যমে মাইক্রোসফটের জনপ্রিয়তা বাড়ানো। তাই তিনি অপারেটিং সিস্টেমের প্রতি গুরুত্ব আরোপ না করে মাইক্রোসফট ক্লাউডের ‘অফিস ৩৬৫’, ‘আউটলুক’, ‘ওয়াননোট’ এবং ‘টু ডু’-এই এপগুলো সবার সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন। বিল গেটস এর এমন সিদ্ধান্তের কারণ হল-মানুষ প্রতিনিয়ত বিভিন্ন এপ এবং ক্লাউড ভিত্তিক সেবা গ্রহণ করছে। তা সে যে ধরনের ডিভাইস ব্যবহার করুক না কেনো। হোক সেটা উইন্ডোজফোন, অ্যানড্রয়েড, ম্যাকওএস কিংবা আইওএস। মাইক্রোসফট এর লক্ষ্য হল সকল ধরণের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর নিকট মাইক্রোসফট ভিত্তিক এপ এবং ক্লাউড সেবাগুলো তুলে ধরা। প্রসংগত উল্লেখ্য যে, মাইক্রোসফট এর প্রধাণ নির্বাহী কর্মকর্তা সত্য নাদেলাও নাকি অ্যানড্রয়েড ফোনই ব্যবহার করছেন।

বিল গেটস কোন অ্যান্ড্রয়েডটি ব্যবহার করছেন যদিও তা এখনো জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি হয়তো অ্যান্ড্রয়েডের গ্যালাক্সি এস৮ ভার্সনটি ব্যবহার করতে পছন্দ করবেন। কেননা এতে অনেক মাইক্রোসফট সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছে। যেমন- মাইক্রোসফট অফিস, ওয়ানড্রাইভ, কর্টানা এবং আউটলুক।

কয়েক বছর আগেও এই বিষয়টি কল্পনাতিত ছিল। কারণ মাইক্রোসফট তখনও আইওএস এবং অ্যানড্রয়েডের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল। তাদের সাথে পাল্লা দিয়ে নিজের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর চেষ্টা করছিল। তবে বিল গেটস এর নতুন পদক্ষেপ নির্দেশ করে যে তিনি এই প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রতি অপারেটিং সিস্টেম থেকে সরিয়ে এপ এবং ডাটা ব্যবহারে নিয়ে এসেছেন। তবে অ্যানড্রয়েড ব্যবহার করলেও তিনি আইফোন বা আইপ্যাড ব্যবহারে মোটেও আগ্রহী নন।

আপনার মতামত ...