স্মার্টফোন ফাস্ট করার ১১টি টিপস

স্মার্টফোন দিয়ে আজকাল শুধু যোগাযোগ নয়, ছবিতোলায়, গান কিংবা মুভি দেখায়, ইন্টারনেট বা গেমস খেলাও ব্যবহার সর্বত্র। তাই ফোনটি কাজের সময় ধীরগতির হয়ে গেলে ভাল লাগেনা কারই। আসুন জেনে নেয়া যাক স্মার্টফোন দ্রুতগতির রাখতে ১১টি সহজ টিপস:

১. অব্যবহৃত এপস মুছে ফেলা:

যে এপটি ব্যবহার করা হয়না তা ফোনে না রাখাই ভাল।অপ্রয়োজনীয় এপস শুধু ইন্টারনাল মেমরি দখলই করেনা এরা ফোনের কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেয়।

২. ক্যাশে মেমরি পরিষ্কার রাখা:

সবসময় ক্যাশে মেমরি (cache memory) মুছে ফেলুন। এতে ফোন দ্রুত গতি হবার সাথে সাথে এপস গুলিও আরো সুচারুভাবে চলতে সক্ষ্মম হবে।

৩. ব্যাকগ্রাউন্ড এপস বন্ধ রাখা:

ব্যাকগ্রাউন্ড এ রানিং এপস বন্ধ রাখুন।ব্যাকগ্রাউন্ড এপস ফোনের ব্যাটারি ও কার্যক্ষমতা কমিয়ে ফোনকে স্লো করে দেয়।

৪. ফোন কে আপ টু ডেট রাখা:

ফোন কে আপ টু ডেট রাখুন।সাধারনত এন্ড্রয়েডের আপডেটেড ভার্সন অনেক নতুন ফিচার যোগ করে ও পুরাতন ত্রুটি দূর করে।

৫. ফাঁকা হোমস্ক্রীন:

হোমস্ক্রীন ফাঁকা রাখুন। হোমস্ক্রীন যত ফাঁকা হবে ফোনের উপর চাপ তত কম হবে।

৬. নো এনিমেশন:

এনিমেশন কম রাখুন অথবা বন্ধ করে দিন। এনিমেটেড ওয়ালপেপার বা উইজেট এর ব্যবহার ফোনকে দৃষ্টিনন্দন করলেও তা পারফরমেন্স এ ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।

৭. নিরাপদ এপ ইন্সটল:

কোন এপ ইনস্টলের পূর্বে ভাল মত যাচাই করে নিন যে তা নিরাপদ কিনা।

৮. হালকা এপ ব্যবহার:

যদি সম্ভব হয় এপের লাইটার ভার্সন ব্যবহার করুন।

৯.  এসডি কার্ড ফরম্যাট:

ইন্টারনাল মেমোরিতে এপস ইন্সটল করা এবং এক্সটারনাল মেমরি মাঝে মাঝে ফরম্যাট দেয়া ফোনের পারফরমেন্স বাড়াতে সাহায্য করবে।

১০ ক্লিনার এপ ব্যবহার করা:

বিভিন্ন ক্লিনার এপস ব্যবহার করে ফনের গতি বারাতে পারেন। আজকাল অনেক স্মার্টফনে ক্লিনার এপ ডিফল্ট ভাবে ইন্সটল করা থাকে।

১১. রিস্টার্ট :

কখনো কখনো সামান্য রিস্টার্টই দিতে পারে আপনার ফোনের কাংখিত গতি।

আপনার মতামত ...