স্মার্টফোন নষ্ট’র ৫ কারন

তথ্য-প্রযুক্তির বর্তমান যুগে স্মার্টফোন ছাড়া একমুহূর্তও চলতে পারি না। প্রযুক্তির কল্যাণে দৈনন্দিন জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে স্মার্টফোন। কিন্তু স্মার্টফোন নষ্ট হওয়ার কারণ কিছু বদ অভ্যাস যার ফলে প্রিয় ফোনটি দ্রুত হারাচ্ছে কার্যক্ষমতা।

এই লেখায় অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল টিপস জানতে পারবো যার ফলে স্মার্টফোনকে নষ্টের হাত থেকে রক্ষা করতে পারবেন।   

তো চলুন জেনে নেওয়া যাক স্মার্টফোন নষ্ট হয় যে ৫ বদ অভ্যাসে।

১। সস্তা চার্জার ও ক্যাবল ব্যবহার


আমরা অনেক টাকা খরচ করে স্মার্টফোন কিনে থাকি কিন্তু মাঝেমধ্যে চার্জ করার জন্য নিম্নমানের চার্জার ব্যবহার করে থাকি অথবা স্মার্টফোনের সাথে দেওয়া চার্জার নষ্ট বা হারিয়ে যাওয়ার ফলে কম দামে নিম্নমানের চার্জার কিনে থাকি যা স্মার্টফোনকে নষ্ট করার জন্য যথেষ্ট। এই নিম্ন মানের চার্জার এবং ক্যাবল ব্যবহারের কারণে অনেক সময় স্মার্টফোন বিস্ফোরিত হওয়ার মতো ঘটনাও ঘটে। এছাড়া এইসব চার্জার এবং ক্যাবলের কারণে স্মার্টফোনের কার্যক্ষমতা কমে যায় এবং সময়ের সাথে সাথে নষ্ট হয়ে যায়। নিম্নমানের চার্জার-ক্যাবল দিয়ে স্মার্টফোনকে চার্জ করতে বেশি সময় লাগে এবং স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হয়ে যায়।

ফোনের বিস্ফোরণ বা নষ্ট করার হাত থেকে বাঁচার জন্য গুণগতমানের চার্জার এবং ক্যাবল ব্যবহার করতে হবে। শুরু গুণগত মানের জিনিস ব্যবহার করলেই হবে না তার সঠিকভাবে পরিচর্যাও করতে হবে। ক্যাবলকে ভালো রাখার জন্য ক্যাবলকে শক্ত করে পেঁচানো যাবে না। ক্যাবলের ক্ষতি যেন না হয় সেই দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে কারণ আমরা কেউ চাই না নিজেকে স্মার্টফোন বিস্ফোরিত হওয়ার খবরে।

২। স্মার্টফোনে কেস ব্যবহার না করা 


এমন অনেকেই আছে যারা কিনা স্মার্টফোনে কেস ব্যবহার করে না। স্মার্টফোনে কেস ব্যবহার না করার ফলে স্মার্টফোনের উপর যেমন অনেক দাগ পড়বে তেমনিভাবে অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। কোনো কিছুর আঘাতের ফলে স্মার্টফোনের ডিসপ্লে বা ছোট ছোট চিপেরও ক্ষতি হতে পারে। আর এটি থেকে স্মার্টফোন বিস্ফোরণেরও ঝুঁকি থাকে। এই ক্ষতির হাত থেকে বাঁচার জন্য হলেও স্মার্টফোনে কেস ব্যবহার করতে হবে।

কেস ব্যবহার করলে যেমন স্মার্টফোনের ক্ষতিসাধণ হয় না তেমনি স্মার্টফোনের সৌন্দর্যও বেড়ে যায়। তাই স্মার্টফোনে কেস ব্যবহার করতে হবে। তবে চার্জিং এর সময় কেস খুলে রাখতে পারেন। কারণ অনেক মোবাইল রয়েছে যা চার্জিং এর সময় অনেক গরম হয়ে যায়। এই অতিরিক্ত গরমের হাত থেকে স্মার্টফোনকে রক্ষার করার জন্য কভার খুলে রাখতে পারেন। এছাড়া বাকি সময় কেস ব্যবহার করবেন।

৩। কখন চার্জ দিবেন 


স্মার্টফোন সঠিকভাবে চার্জ না দেওয়ার ফলে অনেক সময় ব্যাটারি ড্রেন এবং ব্যাটারি ফুলে যাওয়ার মতো সমস্যায় পড়ে থাকি। আবার অনেকের অভ্যাস রয়েছে স্মার্টফোন রাতে চার্জে লাগিয়ে ঘুমাতে যাওয়ার। এই অভ্যাসের ফলে ব্যাটারি নষ্ট হয়ে যায়। সারারাত ধরে চার্জ হওয়ার ফলে ব্যাটারি ওভারচার্জ হতে থাকে। এতে স্মার্টফোন গরম হয়ে যায় এবং স্মার্টফোনের ব্যাটারি বিস্ফোরিত হতে পারে। তাই সারারাত ধরে চার্জ দেওয়া যাবে না।

চার্জ দেওয়ার জন্য রয়েছে কিছু নিয়ম যা মেনে চললে স্মার্টফোনের ব্যাটারি দীর্ঘস্থায়ী হয়। ২০-৩০% এর বেশি চার্জ থাকলে ফোন চার্জ দেওয়া উচিত নয়। আবার একেবারে শূন্য করেও চার্জ দেওয়া উচিত না। ব্যাটারিতে ৫-২০% চার্জ থাকা অবস্থায় চার্জ দিতে হবে। এতে ব্যাটারি ভালো থাকে।

 

৪। পানির নিচে সেলফি 


আমাদের অনেকের কাছে পানিরোধী স্মার্টফোন রয়েছে এবং সেইসব স্মার্টফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করে আমরা পানির নিচে সুন্দর সুন্দর ছবি এবং ভিডিও তুলে থাকি। যদি আপনার স্মার্টফোনটি পানিরোধী রেটিং আইপি৬৭ অথবা আইপি৬৮ হয়ে থাকে তবুও পানি প্রবেশের সম্ভাবনা থাকে। হয়তোবা তা সাথে সাথেই ধরা পড়ে না কিন্তু সময় যাওয়ার সাথে সাথে সমস্যা দেখা দেওয়া শুরু করে এবং স্মার্টফোনের ক্ষতি সাধণ হয়ে যায়। তাই পানির নিচে স্মার্টফোন ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।

তবে স্মার্টফোনকে সুরক্ষিত রাখে এমন কোনো বিশেষ গ্যাজেট ব্যবহার করে পানির নিচে ছবি তুলতে পারেন। যা স্মার্টফোনের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করবে।


৫। স্মার্টফোনের সুরক্ষা না দেওয়া

অনেক মানুষ রয়েছে যারা কিনা নিয়মিত স্মার্টফোনের অ্যাপ আপডেট করে না। তাছাড়া ডিভাইসের বিভিন্ন ধরণের আপডেটও করে না এর ফলে ডিভাইসে ম্যালওয়্যার ভাইরাস প্রবেশ করে ডিভাইসের ক্ষতিসাধণ করে। এই ক্ষতির হাত থেকে বাঁচার জন্য স্মার্টফোনে নিয়মিত সিকিউরিটি প্যাচ নিয়মিত আপডেট করতে হবে। এই আপডেটের ফলে স্মার্টফোনের বাগ সংশোধণ হয় এবং নিরাপত্তাও নিশ্চিত হয়।

স্মার্টফোনে অযৌক্তিক অ্যাপ রাখা থেকে বিরত থাকুন। প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোরে এমন অনেক অ্যাপ রয়েছে যা অযৌক্তিক। এই সব অ্যাপ ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করে থাকে এবং স্মার্টফোনেরও ক্ষতি করে থাকে। তাই অ্যাপ ব্যবহারেও সাবধাণতা অবলম্বণ করতে হবে।


এখন আপানাদের জন্য রয়েছে কিছু বোনাস টিপস। পাওয়ার ব্যাংক দিয়ে স্মার্টফোন চার্জ দেওয়ার সময় ফোন ব্যবহার করবেন না। কারণ পাওয়ার ব্যাংক দিয়ে চার্জের সময় ফোন অনেক গরম হয়ে যায়। এছাড়া ফোনে আলাদা কোনো ব্যাটারি অপটিমাইজ অ্যাপ ব্যবহার করবেন না। যা ব্যবহার করলে উল্টো ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ হয়। সুতরাং এইসব অ্যাপ ব্যবহার থেকে বিরত থাকবেন।

আশা করি লেখাটি আপনাদের ভালো লেগেছে। লেখায় কোনো ভুল থাকলে তা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। লেখাটি কেমন হয়েছে তা অবশ্যই মন্তব্য করে জানাবেন। আর এমন আরো লেখা এবং প্রযুক্তি দুনিয়ার খবর জানতে টেকমাস্টার ব্লগের সাথেই থাকুন।

ধন্যবাদ

ইরফান

জানতে এবং জানাতে ভালোবাসি। তবে প্রযুক্তি নিয়ে জানার আগ্রহটা আরো বেশি তাই নিজে যা জানি তা তুলে ধরি টেকমাস্টার ব্লগে। প্রয়োজনে যোগাযোগঃ ফেসবুক টুইটার বিশেষ প্রয়োজেনে ইমেইল hi.mdirfan07@outlook.com

আপনার মতামত ...