রোবোটিকস ল্যাবের উদ্বোধন বুয়েটে

গত মঙ্গলবার বুয়েটে সদ্য নতুন গড়ে তোলা রোবটিকস ল্যাবের উদ্বোধন করেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক এমপি এবং বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম। এই ল্যাব নির্মানে ব্যয় হয়েছে প্রায় ১কোটি ৬৫ লাখ টাকা। 

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্কের অধীনে দুটি প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন বেসরকারি ও সরকারি মিলিয়ে মোট ৩২ টি ল্যাব নির্মানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার। যার মধ্যে ১৫টি ল্যাবের নির্মাণ কাজ শেষ এবং আরো নতুন ১০টি ল্যাবের কাজ চলছে। এই প্রকল্পের অধীনেই নির্মাণ করা হয় বুয়েট রোবোটিকস ল্যাব।

এই ল্যাব বুয়েটের সকল শিক্ষার্থী ও দেশ বিদেশের গবেষকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। সরকার আগামী ২০২৩ সনের মধ্যে আইটি তথা হাই-টেক সেক্টর হতে ৫ বিলিয়ন ডলার রপ্তানী আয় এবং ২ মিলিয়ন কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। প্রাইমারী- হাইস্কুলে ডিজিটাল ক্লাস-ল্যাব  নির্মান ও এই উদ্যোগের ই অংশ।

ইতিমধ্যে ৪০১৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব ‘শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব’ এবং ১৬০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘শেখ রাসেল ডিজিটাল ক্লাসরুম’ স্থাপন করা হয়েছে।

বুয়েট রোবোটিক্স ল্যাবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন

আমাদেরকে এখন শ্রমনির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে মেধানির্ভর অর্থনীতির দিকে মনোনিবেশ করতে হবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ধাক্কা সামলাতে হলে আমাদেরকে এখনই উচ্চতর প্রযুক্তির দিকে নজর দিতে হবে। রোবটিক্স চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার। তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশের এক ছেলে এখন গুগলের ডাইরেক্টর। শুধু গুগল নয়, ইনটেল, ফেসবুক, গুগল সব জায়গায় আমাদের ছেলেরা ভালো করছে। সরকারের অন্যতম লক্ষ্য হলো আমাদের মেধাবীদেরকে দেশেই ধরে রাখা। এই মেধাবীদের কাজে লাগাতে পারলে প্রযুক্তির জন্য বিদেশের দিকে চেয়ে থাকতে হবে না।

এছাড়া বুয়েট উপাচার্য প্রফেসর ড. সাইফুল ইসলাম বলেন,

এ ল্যাব কোনো নির্দিষ্ট ডিপার্টমেন্টের জন্য নয়। সব বিভাগের শিক্ষার্থী-শিক্ষক এ ল্যাবে গবেষণা করতে পারবেন।

 

 

উদয়

সবার মধ্যেই কিছু না কিছু থাকে,সেই কিছু খোজার প্রচেষ্টাতেই আছি। ভালো লাগে টেকনোলজি,তাই টেক-মাস্টারব্লগের সাথে সম্পৃক্ততা ।

আপনার মতামত ...