হ্যান্ডস-অন রিভিউঃ সনি এক্সপেরিয়া এসপি

এন্ড্রয়েড জগতে প্রথম প্রবেশ করার পর থেকেই স্মার্টফোন নিয়ে অতৃপ্তির কিছু ব্যাপার যেমন নতুন এন্ড্রয়েড ওএস ভার্শন আপডেট না পাওয়া কিংবা ডিসপ্লের সাইজ ছোট হওয়া, চার্জ ব্যাক আপ  ইত্যাদি। তাই এবার সনি এক্সপিরিয়া এসপি দিয়েই কিছু অতৃপ্তির পূর্ণতা এবং সেই সনি এক্সপিরিয়া এসপির রিভিউ নিয়েই আজকে হাজির টেকপ্রেমী তুসিন আহমেদ
 

এন্ড্রয়েড জগতে আমার প্রথম প্রবেশ সনি এক্সপিরিয়া সোলা স্মার্টফোনটি দিয়ে। কিন্তু নতুন এন্ড্রয়েড ভার্শন আপডেট না পাওয়া এবং ডিসপ্লে সাইজ কিছুটা ছোট হওয়া সোলা বিক্রি করে দেই। এরপর ট্যাব দিকে নজর গেল। ব্যবহার করলাম স্যামসাং ট্যাব প্লাস, এরপর ট্যাব টু। কিন্তু একটাও ভাল লাগে নি। এরপর আবার সনিতে ফিরে আসলাম। এবার কিনলাম সনি এক্সপিরিয়া এসপি। একটা রিভিউ লিখে ফেললাম। যারা এই সেটটি কিনতে চান তাদের কাজে লাগবে।

সনি এক্সপেরিয়া এসপি হ্যন্ডসেট
সনি এক্সপেরিয়া এসপি

প্রসেসরঃ Qualcomm MSM8960T Snapdragon

র‌্যামঃ ১ গিগাবাইট, ৭৬৬ মেগাবাইট ব্যবহারযোগ্য।

জিপিইউঃ Adreno 320

  ডিসপ্লেঃ ৪.৬ ইঞ্চি প্রশস্ত এইচডি যার রেজলুশন ৭২০ x ১২৮০, গোরিলা গ্লাস সমৃদ্ধ , ব্রাভিয়া ইন্জিন ২,মাল্টি টাচ সাপোর্ট।

ক্যামেরাঃমেগাপিক্সেল অটোফোকাস রিয়ার ক্যামেরা,  ভিজিএ  ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরা, ফুল এইচডি ভিডিও রেকর্ডিং ও প্লেব্যাক।

স্টোরেজঃ ইন্টানাল ৮ গিগাবাইট। ব্যবহার যোগ্য ৫.৩৭ গিগাবাইট  অর্থাৎ এতে রয়েছে ৩২ গিগাবাইট রম।

ওএসঃ  এন্ড্রয়েড ৪.১.২ জেলি বিন।যা এন্ড্রয়েড ৪.৩ তে আপডেট করা যাবে।

অন্যান্যঃ থ্রিজি, ওয়াইফাই, ওয়াইফাই ডিরেক্ট, ব্লুটুথ, জিপিএস, ২৩৭০ mAh ব্যাটারি, প্রায় সবরকম সেন্সর, ৩.৫ মিমি অডিও জ্যাক পোর্ট, মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট ইত্যাদি।

 

Screenshot_2013-11-11-08-27-03

বক্সে যা যা থাকছেঃ 

ছবি?

১) হ্যান্ডসেট

২) ইয়ার বাড

৩) চার্জার/ ডাটা ক্যাবল

৪) ইউজার ম্যানুয়াল

বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইন:

ডিজাইন এর  দিক দিয়ে xperia sp মিন্ড রেন্জের ফোনগুলোর মধ্যে চমৎকার একটি ডিজিইন। এর বডির সাইড অংশটুকু xperia z  এর মত।এর পাওয়ার বাটন এবং ভলিয়ম আপ এবং ডাউন বাটন সম্পূন xperia z এর মত।  পাওয়ার বাটনের উপর ভলিয়ম কী  এবং নিচে আছে ক্যামেরা কী আছে।ফোন উপর অংশ রয়েছে  ৩.৫ মিমি অডিও জ্যাক।
Sony-XperiaSP-07অপর প্রান্তে রয়েছে মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট ।
xperia sp এর যে ডিজাইনটি সবচেয়ে বেশি আকষনীয় তা হল  লাইট ইফেন্ট।মোবাইলটির নিচের দিকে রয়েছে এই অংশটি। মিউজিকের সাথে সাথে এবং গ্যালালির ছবি সাথে সাথে লাইট পরিবর্তন হয় এছাড়া নোটিফিকেশন  এই লাইট ইফেক্ট কাজ করে।চইলে সেটিং থেকে নিজের পছন্দ মত  রং নির্বাচন করতে পারবেন লাইট ইফেক্ট এর জন্য।মেটাল ফিনিস এর পরিবর্তে Xperia sp এ দেয়া হয়েছে সফট টাচ এবং হাই কোয়ালিটি রাবার ফিনিশ। এই রাবার ফিনিশের কারনেই ডিভাইস টি আপনার হাত থেকে কখন স্লিপ করবে না।
ডিসপ্লে :Screenshot_2013-11-11-09-20-52

Screenshot_2013-11-11-09-21-09xperia sp এ দেয়া হয়েছে ৪.৬ ইঞ্চি টিএফটি ক্যাপাসিটিভ ডিসপ্লে (৭২০x ১২৮০ পিক্সেল )। এই ৪.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের পিপিআই হল ৩২০। ডিসপ্লের ঠিক নিচেই রয়েছে ৩টি ক্যাপাসিটিভ নেভিগেশন বাটন। ফোনের ভিউইং এঙ্গেল ভালোই বলা যায়। তাছাড়া রিফ্লেকশানও খুব একটা নেই। ফোনের রেজুলেশন অনেক ভাল বলা যায়। অন্যান্য হাই এন্ড ডিভাইসের মতই। ব্রাভিয়া ইন্জিন ২ এর জন্য ব্রাইটনেস খুবই ভাল ।

 

মাল্টিমিডিয়া  :
Screenshot_2013-11-11-09-40-17Screenshot_2013-11-11-09-39-41

Screenshot_2013-11-11-09-39-26

Xperia sp এর এন্ড্রয়েড ভার্সন হল জেলিবিন ৪.১.২ । মাল্টিমিডিয়া গুলো খুবই সুন্দর। পাশাপাশি আছে সনির   লাইট ইউজার ইন্তারফেস। যা আপনাকে মুগ্ধ করবেই। আর ইন্টারফেস খুবই স্মুথ । আরেকটি মজার বিষয় হল; Xperia sp এর ইন্টারফেস এর সাথে সনি  Xperia Z এর ইন্টারফেস  সম্পূন একই। সনির নিজস্ব ওয়াকম্যান আর গ্যালারি অ্যাপতো আছেই।

maxresdefault
আর সবচেয়ে যে বিষয়টি সবার মন কাড়ে তাহলে মিউজিক এবং ছবির সাথে লাইট ইন্টারফেস এর পরিবর্তন।

ক্যামেরা (Camera):

Screenshot_2013-11-11-10-34-05

Sony Xperia sp এর ক্যামেরা ৮ মেগাপিক্সেল।রেজুলেশন৩২৬৪ x ২৪৪৮পি।  সাথে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশ। মিড রেঞ্জের ফোন হিসেবে যা অনেক ভালই বলা যায়। ১০৮০পি ভিডিও  রেকর্ড করা যাবে ।এর ভিডিও কোয়ালেটি অনেক ভাল।

Screenshot_2013-11-11-10-33-44

“Superior auto” অপশনে ছবি তুলতে বেশ ভাল মানের ছবি পাওয়া যায়।তাছাড়া বিভিন্ন অপশন রয়েছে ছবি তোলার জন্য।

এবার দেখি ছবির কোয়ালিটি
DSC_0036

দিনের আলোতে তোলা ছবি।
DSC_0019

রাতের  ছবি

বেঞ্চমার্ক এবং পারফরমেন্স:

Xperia  sp এ আছে Dual-core 1.7 GHz Krait প্রসেসর  চিপসেটQualcomm MSM8960T Snapdragon  আর সাথে এক জিবি র‍্যাম। তো বুঝাই যাচ্ছে এর পারফরমেন্স হবে দারুন , ল্যাগ ফ্রি এতে ইউজ করা হয়েছে  Adreno 320 জিপিইউ।  যা দেবে দারুন গ্রাফিক্স আউটপুট এর নিশ্চয়তা।
হোমস্কিন ও অ্যাপ ড্রয়ার ও স্মুথলি চলে।

একটি ডিভাইসের ক্ষমতা ঠিক কতটুকু সেটি পরিমাপ করতেই মূলত বেঞ্চমার্ক করা হয়ে থাকে। আর বেঞ্চমার্ক অ্যাপ্লিকেশনগুলোর মাঝে বর্তমানে Antutu Benchmark অ্যাপ্লিকেশনটিই সবচেয়ে জনপ্রিয়।
Antutu বেঞ্চমার্ক টেস্টে এটা মোটামুটি ভালই রেজাল্ট দিয়েছে।

Screenshot_2013-11-11-08-23-00Screenshot_2013-11-11-08-22-42

উপরেই দেখতে পারছেন  xperia sp এর বেঞ্চমার্ক স্কোর এসেছে ২১৬৬২।

 

গেমিং

Screenshot_2013-10-15-19-17-58এখনকার সময়ে   অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ব্যাবহারকারীরা যে সব কাজ করে থাকে তার মধ্যে অন্যতম হল গেমিং । আর একটি ডিভাইস কতটুকু শক্তিশালী তা বুঝার জন্য করার জন্য গেমিং এর মাধ্যমে টেস্ট করাটা বেশ কার্যকরী। কারণ উচ্চক্ষমতার গেমগুলো চালানোর জন্য যেকোন ডিভাইসের সর্বোচ্চ ক্ষমতার প্রয়োগ দেখা যায় গেমিং এর মধ্যমে। আর ১ গিগাবাইট র‍্যাম, Qualcomm MSM8960T Snapdragon ,  1.7ghz karati এবং adreno 320 গ্রাফিক্সে xperia sp গেইমাদের জন্য চমৎকার একটা সেট হতে পারে।

ফিফা ১২,এনএফএস ,ডেড ট্রাগারের মত হাই পাওয়ার গেমগুলো আমি খেলেছি কোন রকম ল্যাগ ছাড়া।

ব্যাটারি ব্যাকআপ আমার কাছে ভাল লেগেছে।রাফ ইউজ করলে একদিন চার্জ থাকে।

আমি কিনেছি ২৬ হাজার টাকা দিয়ে।বর্তমানে দাম ২৫ হাজার টাকা।আর আপনি যদি অফিসিয়াল ওয়ারেন্টি নিতে চান তাহলে দাম পড়বে ২৯ হাজার টাকা।এই বাজেট এর থেকে ভাল সেট নেই।আমার দেখা মতে।আর সনির কথা কিছু বলার নেই।সনির ডিজাইনগুলো আমার কাছে বরবারই অসাধারন লাগে।সেখানে স্যামাসং এর ডিজিইন আমার একধুম ভার লাগে না।

পূর্ব প্রকাশ : তুসিনের জল-জোছনায়

2 thoughts on “হ্যান্ডস-অন রিভিউঃ সনি এক্সপেরিয়া এসপি

  • সেপ্টেম্বর 13, 2014 at 1:02 পূর্বাহ্ন
    Permalink

    os.com.bd/index.php/online-accounting-software-in-bangladesh

    Reply
  • মে 23, 2014 at 7:19 অপরাহ্ন
    Permalink

    রিভিউর জন্য ধন্যবাদ। আপনি কোত্থেকে কিনেছেন বা বাংলাদেশে কোত্থেকে কিনলে ভালো হয়?

    Reply

আপনার মতামত ...