৩ডি হলোগ্রামে বঙ্গবন্ধু’র ভাষন

হাজারো দর্শকশ্রোতার সামনে এসেছিলেন বাঙ্গালির জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তবে সেটি বাস্তবে নয়, পর্দায়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ তুলে ধরা হয় গতকাল ৭ই মার্চ রোজ শনিবার, ৩ডি হলোগ্রাফিক প্রজেকশনে। ঢাকার আর্মি স্টেডিয়াম এ অনুষ্ঠেয় জয় বাংলা কন্সার্টে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ১মবারের মতো জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের ২৩টি উক্তি নিয়ে থ্রিডি হলোগ্রাম তৈরি করেছে।

থ্রিডি হলোগ্রাফিক প্রজেকশনটি গতকালই জয় বাংলা কন্সার্টে প্রথমবারের মত সর্বসাধারণ এর মাঝে তুলে ধরা হয়।

প্রজেকশন এর শুরুতেই, কবি নির্মলেন্দু গুণের বিখ্যাত কবিতা ‘স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো’ আবৃত্তি করা হয়। কবিতা আবৃত্তির শেষাংশে হঠাৎই মঞ্চে উপস্থিত হন বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। এটিও করা হয় হলোগ্রাফিকরূপে।

তাঁরা তাদের মুখে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ৩২ নম্বর সড়কের বাড়ির পরিস্থিতি, তাঁদের মা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের দূরদর্শী পরামর্শের স্মৃতিচারণ করেন। স্মৃতিচারণ এর এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কণ্ঠে কবিতার শেষ ক’টি লাইনের আবৃত্তি শোনা যায়। যা পুরো পরিবেশকে এক অন্যমাত্রায় নিয়ে যায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কণ্ঠে কবিতা আবৃত্তি শেষ হতেই সবার সামনে হাজির হন বঙ্গবন্ধু। সেসময় স্টেডিয়াম এর দর্শকগণ ত্রিমাত্রিক ভাবে পুরো ভাষণটি চোখের সামনে দেখতে পান। যা দেখে মনে হচ্ছিল সত্যি বঙ্গবন্ধু বাস্তবে এসে ভাষণ দিচ্ছেন।

প্রকল্পটির ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল।

হলোগ্রাফিক প্রযুক্তিটির কারিগরি দিক বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান এন.ডি.ই সল্যুশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রিয়াদ এস.এ হোসেইন গণমাধ্যমকে বলেন, হলোগ্রাফি হচ্ছে এমন এক ধরনের ফটোগ্রাফিক প্রযুক্তি; যা কোনো বস্তুর ত্রিমাত্রিক ছবি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। এ প্রযুক্তিতে তৈরি করা ত্রিমাত্রিক ছবি ‘হলোগ্রাম’ নামে পরিচিত।’

তিনি জানান, ‘এই থ্রিডি হলোগ্রাম আবারও লাইভ প্রদর্শন করা হবে আগামী ১৯ মার্চ জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিতব্য শিশুমেলায়। এরপর দেখানো হবে ২০২১ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিতব্য ‘তথ্য প্রযুক্তি সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক কংগ্রেস ২০২০’-এ। এরপর এই হলোগ্রাম স্থায়ীভাবে রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের শেখ লুৎফর রহমান ও শেখ সায়েরা খাতুন প্রদর্শনী গ্যালারি থিয়েটারে স্থাপন করা হবে’।

জয় বাংলা কনসার্টঃ


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।