যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউতে ফেস মাস্ক দান জ্যাক মা’র

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় ৫ লক্ষ করোনাভাইরাস শনাক্তকরন কিট ও ১০ লক্ষ ফেস মাস্ক দান করবেন এশিয়ার সবচেয়ে ধনী, আলিবাবার সহ প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা। শুক্রবার টুইটার ও উইবোতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তিনি।

সারা বিশ্বে ফেস মাস্কের অন্যতম রপ্তানীকারক দেশ চায়না। চায়না থেকেই বেশিরভাগ দেশগুলো ফেস মাস্ক আমদানী করে থাকে। এবছরের জানুয়ারীতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার পর থেকে চায়নাতে ফেস মাস্কের চাহিদা বেড়ে যায়। ফলে অন্যান্য দেশে ফেস মাস্ক রপ্তানী বন্ধ করে দেয় চায়না। চায়না ছাড়াও অন্যান্য দেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় সেসব দেশে ফেস মাস্কের সংকট দেখা দেয়।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ফেস যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোতে যেন ফেস মাস্কের সংকট তৈরি না হয় সে লক্ষ্যেই আলিবাবার সহ প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা’র এমন সিদ্ধান্ত। তিনি তার নিজের দেশ চায়নার অভিজ্ঞতা থেকে জানান, ‘ভাইরাসটির বিস্তার রোধে সন্দেহজনক ব্যাক্তির দ্রুত ও সঠিক পরীক্ষন এবং চিকিৎসকদের জন্য পর্যাপ্ত ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম সবচেয়ে কার্যকর ভূমিকা পালন করে’। তাদের এই অনুদান আমেরিকানদেরকে মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করতে পারবে বলে আশা করেন তিনি।

এছাড়া ইউরোপের দেশগুলোতে সহযোগিতা হিসেবে প্রায় ২০ লক্ষ ফেস মাস্ক ও ১ লক্ষ করোনাভাইরাস শনাক্তকরন কিট দেওয়া হবে জ্যাক মা ও আলিবাবার পক্ষ থেকে। এই সহযোগিতার অংশ হিসেবে গত শুক্রবার করোনাভাইরাস শনাক্তকরন কিট ও ফেস্ক মাস্ক এর প্রথম চালান বেলজিয়াম এয়ারপোর্টে পৌঁছে।

এর আগে, জাপানে ১০ লক্ষ ও ইরানে ১০ লক্ষ ফেসমাস্ক অনুদান দেওয়া হয়েছে বলে উইবোতে জানান জ্যাক মা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।