১ ঘন্টায় ১০০ শতাংশ চার্জ হুয়াওয়ে ‘পি ৪০ প্রো’ তে

হয়াওয়ের উন্মোচনকৃত নতুন ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস পি ৪০ প্রো একবার সম্পূর্ণ অর্থাৎ ১০০ শতাংশ চার্জ হতে সময় নেয় মাত্র ১ ঘন্টা। সম্প্রতি পি ৪০ প্রো নিয়ে করা এক পরীক্ষায় দেখা গেছে এটি।

পরীক্ষায় দেখা গেছে স্মার্টফোনটি ৩০ শতাংশ চার্জ হয় প্রায় ১০ মিনিটে, ৫০ শতাংশ হয় প্রায় ২৫ মিনিটে, ৮০ শতাংশ হয় ৪০ মিনিটে। ৫৯ মিনিট বা প্রায় ১ ঘন্টায় স্মার্টফোনটি ১০০ শতাংশ চার্জ পূর্ণ হয়।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ২০ আল্ট্রা এবং হুয়াওয়ে পি ৪০ প্রো এর চার্জের ভিত্তিতে একটি তুলনামূলক ভিডিও প্রকাশ করে ভেরিফাইড ইউটিউব চ্যানেল বোরডাটওয়ার্ক.কম। ভিডিওতে দেখা যায়, পি ৪০ ১০০ শতাংশ চার্জ হতে সময় নেয় ৫৯ মিনিট ৩০ সেকেন্ড বা প্রায় ১ ঘন্টা।

পি ৪০ প্রো এবং পি ৪০ প্রো প্লাস স্মার্টফোন দুটিতে ৪২০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারী ব্যাকাপ থাকছে। চার্জের ক্ষেত্রে ফোন দুটি ৪০ ওয়াট দ্রুত চার্জিং প্রযুক্তি সম্পন্ন। ওয়্যারলেস চার্জিং এর ক্ষেত্রে পি ৪০ প্রো প্লাস ৪০ ওয়াট সুপার ফাস্ট এবং পি ৪০ ২৭ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং ব্যাবস্থা রয়েছে।

পি ৪০ প্রো এবং পি ৪০ প্রো প্লাস এ রিভার্স ওয়্যারলেস চার্জিং এর ফিচার রয়েছে। রিভার্স ওয়্যারলেস চার্জিং এর ফিচারযুক্ত দুটি ফোন একটি অপরটির উপর উল্টোভাবে রেখে দিলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে একটি থেকে অপরটিতে চার্জ হবে।

পি ৪০ প্রো স্মার্টফোনে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উজ্জ্বলতা হ্রাস বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ৬০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের ডিভাইসে প্রতি ঘন্টায় ১০ শতাংশ এবং ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের ডিভাইসে প্রতি ঘন্টায় ১২ শতাংশ চার্জ কমে।

পি ৪০ প্রো এবং পি ৪০ প্রো প্লাস স্মার্টফোন দুটির বিবরণীঃ

চিপসেটঃ

চিপসেট এ রয়েছে কিরিন ৯৯০ ৫ জি (২ এক্স কর্টেক্স-এ ৭৬ ভিত্তিক ২.৮৬ গিগাহার্জ + ২ এক্স কর্টেক্স-এ ৭৬ ভিত্তিক ২.৩৬ গিগাহার্জ + ৪ এক্স কর্টেক্স-এ ৫৫ ১.৯৫ গিগাহার্জ) প্রসেসর। সাথে রয়েছে এআরএম মালি-জি ৭৬ এমপি ১৬ জিপিইউ, ডুয়াল বিগ কোর + টিনি কোর এনপিইউ (নিউরাল-নেটওয়ার্ক প্রসেসিং ইউনিট)।

ডিসপ্লেঃ

৬.৫৮ ইঞ্চি (২৬৪০ x ১২০০ পিক্সেল) ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেট, ডিসিআই-পি ৩ এইচডিআর সহ ফ্লেক্স ওএলইডি ডিসপ্লে রয়েছে।

র‍্যাম ও স্টোরেজঃ

ডিভাইস দুটিতে রয়েছে ৮ জিবি র‍্যামে ২৫৬ জিবি অথবা ৫১২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ।

ক্যামেরাঃ

পি ৪০ প্রোঃ- এফ / ১.৯ অ্যাপারচারযুক্ত ৫০ মেগাপিক্সেল রিব আল্ট্রা ভিশন ক্যামেরা, এফ / ১.৮ অ্যাপারচারযুক্ত ৪০ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড সিনেমা ক্যামেরা, এফ / ৩.৪ অ্যাপারচারযুক্ত ১২ মেগাপিক্সেল রিব পেরিস্কোপ ক্যামেরা রয়েছে পি ৪০ প্রো তে।

৬০ এফপিএস (ফ্রেম পার সেকেন্ড) এ ৪ কে ভিডিও রেকর্ডিং করা যাবে ফোনটি দিয়ে। এতে রয়েছে আইএসও ৫১২০০ এবং ৭৬৮০ এফপিএস (ফ্রেম পার সেকেন্ড) এ আল্ট্রা স্লো-মোশন ভিডিও ক্যাপচার করার ফিচার।

ফোনটি দিয়ে ৫ এক্স অপটিকাল জুম, ১০ এক্স হাইব্রিড জুম এবং ৫০ এক্স ডিজিটাল জুম করা যাবে। এতে ডুয়াল-টোন এলইডি ফ্ল্যাশ ব্যাবহার করা হয়েছে।

পি ৪০ প্রো প্লাসঃ– এফ / ১.৯ অ্যাপারচারযুক্ত ৫০ মেগাপিক্সেল রিব আল্ট্রা ভিশন ক্যামেরা, এফ / ১.৮ অ্যাপারচারযুক্ত ৪০ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড সিনেমা ক্যামেরা, এফ / ৪.৪ অ্যাপারচারযুক্ত ৮ মেগাপিক্সেল পেরিস্কোপ ক্যামেরা, এফ / ২.৪ অ্যাপারচারযুক্ত ৮ মেগাপিক্সেল টেলিফটো ক্যামেরা রয়েছে পি ৪০ প্রো প্লাস এ।

৬০ এফপিএস (ফ্রেম পার সেকেন্ড) এ ৪ কে ভিডিও রেকর্ডিং করা যাবে ফোনটি দিয়ে। এতে রয়েছে আইএসও ৫১২০০ এবং ৭৬৮০ এফপিএস (ফ্রেম পার সেকেন্ড) এ আল্ট্রা স্লো-মোশন ভিডিও ক্যাপচার করার ফিচার।

ফোনটি দিয়ে ১০ এক্স অপটিকাল জুম, ২০ এক্স হাইব্রিড জুম এবং সর্বোচ্চ ১০০ জুম করা যাবে। এতে ডুয়াল-টোন এলইডি ফ্ল্যাশ ব্যাবহার করা হয়েছে।

ফোন দুটিতে এফ / ২.২ অ্যাপারচারের ৩২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যাবহার করা হয়েছে। এটি দিয়ে ৪ কে রেজুলেশনের ভিডিও করা যাবে।

এছাড়া ফোন দুটিতে রয়েছে ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। দুটি ফোনই পানি প্রতিরোধক।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।