করোনায় উল্টো পথে অ্যামাজন আলিবাবা!

করোনার এই মহা সংকটের সময়েও আয় ও সম্পদ দুটিই বেড়েছে অ্যামাজন ও আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতাদের। মহামারী নভেল করোনাভাইরাস যেন অনেকটা আশীর্বাদ হয়ে দাঁড়িয়েছে ই-কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন ও আলিবাবার জন্য।

করোনা সতর্কতায় আরোপিত লকডাউন পরিস্থিতিতে ভোক্তারা এখন ঘরের বাইরে কম বের হচ্ছেন, বাড়িতে বসেই কেনাকাটা করছেন অনলাইনে ।জরুরি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সহ প্রায় সকল প্রকার পণ্যের কেনাকাটা অনলাইনেই সেরে নিচ্ছেন অনেকেই। যারা অনেকেই অল্প কেনাকাটা করত অনলাইনে তারাও এখন চাল-ডাল থেকে শুরু করে প্রায় সকল দৈনন্দিন পণ্য ক্রয় করছেন।

ইলেক্ট্রনিক্স ও প্রযুক্তিগত পণ্যের বদলে চাহিদা বেড়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য চাল, ডাল, তেল, চিনি ও শুঁকনো খাবারের। আলিবাবার মালিকানায় বাংলাদেশের দারাজ ডট কম এর শুঁকনো খাবার, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশসহ অধিকাংশ প্রডাক্টই এখন স্টক আউট দেখা গিয়েছে। ক্রেতাদের অধিক অর্ডারগুলো সময়মত ডেলিভারি করতেও কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।

ব্যবসা বেড়ে যাওয়ায়  অ্যামাজন ও আলিবাবার শেয়ারমূল্য বেড়ে রেকর্ড উচ্চতায় উঠেছে। ফলে নিট সম্পদমূল্য বেড়েছে অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা ও বিশ্বের শীর্ষ ধনী জেফ বেজোসের, এবং দক্ষিণ এশিয়ার এক নাম্বার ধনী ব্যক্তি মুকেশ আম্বানিকে পেছনে ফেলে দিয়েছে চীনের ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক-মার।

তথ্যসূত্র- ব্লুম্বারগ, দি লেডিস গ্যালারি দারাজ

মেহেদী হাসান পলাশ

Mehedi Hasan Polash ভালোবাসি প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে ও জানাতে, এই ভালো লাগা থেকেই যোগ দেওয়া প্রযুক্তি ব্লগিংয়ে। পাশে পেয়েছি টেকমাস্টার ব্লগ কমিউনিটি, দিকনির্দেশনা দিতে শ্রদ্ধেয় মেজবা উদ্দিন ভাই। ব্লগিং জগতের সবচেয়ে বড় যে পাওয়া তা হচ্ছে তথ্য, ব্লগিং এর জন্য প্রতিদিনই নিজেকে বেশি বেশি তথ্য জানতে হচ্ছে যা অনেকটা নেশার মত হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর জীবনটাই তো শেখার জন্য, জানার জন্য। বর্তমানে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে মার্কেটিং ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস উভয় বিষয়ে (বিবিএ) অধ্যায়নরত। প্রয়োজনে যোগাযোগ - মেইলঃ mpolash@icloud.com গুগল প্লাস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।