মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ ফেসবুক’র

৭০ টির বেশি দেশে নতুনভাবে মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ চালু করেছে ফেসবুক। এক ব্লগ পোস্টে ফেসবুক শিশুদের উপযোগী মেসেজিং প্লাটফর্ম মেসেঞ্জার কিডস  উন্মোচনের ঘোষনা দেয়।

ব্রাজিল, ভারত, জাপান এবং নিউজিল্যান্ডের যে দেশগুলিতে শিশুদের উপযোগী মেসেজিং পরিষেবা চালু করা হয়েছে তার তালিকা প্রকাশ করা হয় ঐ পোস্টে। অ্যাপ্লিকেশনটি কীভাবে কাজ কররে সে সম্পর্কেও ধারনা দিয়েছে ফেসবুক।

শিশুদের জন্য মেসেঞ্জার উন্মোচনের প্রথম সিদ্ধান্ত হয় যুক্তরাষ্ট্রে ২০১৭ সালে। এরপর ২০১৮ সালে কানাডা ও পেরুতে এর পরিষেবা সম্প্রসারিত হয়।

বর্তমানে মহামারী করোনাভাইরাস এর কারনে শিশুদের স্কুল বন্ধ থাকায় তারা ঘরে বসে অনলাইনে শিখছে। অনলাইন শিক্ষন কার্যক্রম সহজতর করতে মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ আরও অনেক দেশে চালু করেছে ফেসবুক।

শিশুদের মেসেঞ্জার কার্যক্রম অভিভাবকরা যেন নজরদারি করতে পারেন সেজন্য মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ সংস্করনে প্যারেন্টাল কন্ট্রোল যুক্ত করা হয়েছে। এতে অভিভাবকরা ঠিক করে দিতে পারবেন তাদের শিশুরা কাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করবে।

শিশুদের হয়ে অভিভাবকরা নতুন বন্ধু তৈরি বা বাতিল করতে পারবেন। বিশেষ ড্যাশবোর্ড রয়েছে মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ সংস্করনে। এছাড়া শিশুদের গ্রুপ চ্যাটে অন্য অভিভাবকদের যুক্ত করার সুযোগ পাবেন অভিবাবকরা।

ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ এর কয়েকটি ফিচার উন্মোচন করেছে ফেসবুক। পর্যায়ক্রমে সব দেশেই এই পরিষেবা উন্মোক্ত করা হবে বলে জানায় ফেসবুক।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।