৬ গিগাহার্জ ট্রাই ব্যন্ড ওয়াইফাই ৬ প্রযুক্তি

ওয়্যারলেস কমিউনিকেশনে সুপার ফাস্ট ইন্টারনেট গতির ক্ষেত্রে ৬ গিগাহার্জ ট্রাই ব্যান্ড ওয়াইফাই ৬ প্রযুক্তি ব্যবহারের পক্ষে মত দিয়েছে ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন।

ওয়াইফাই রাউটারে ২.৪ গিগাহার্জ ও ৫ গিগাহার্জ যেভাবে ব্যবহৃত হয় সেভাবে এই নতুন ৬ গিগাহার্জ ব্যান্ডও ব্যবহার করা হবে।

ওয়্যারলেস প্রযুক্তিতে ৬ গিগাহার্জ ব্যান্ড ব্যবহার করা হলে পূর্বের তুলনায় বেশি এয়ারওয়েভ উন্মোক্ত হবে। এই বছরের শেষের দিকে নতুন বর্ণালীটি ব্যবসায়ের জন্য উন্মুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে। এতে করে পরবর্তী প্রজন্মের ডিভাইসগুলির থেকে দ্রুত এবং আরও নির্ভরযোগ্য সংযোগ পাওয়া যাবে।

ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন কর্তৃক ১৯৮৯ সালের পর এটিই ওয়াইফাই প্রযুক্তিতে বৃহত্তম বর্নালী সংযোজন। ওয়্যারলেস প্রযুক্তির ৬ গিগাহার্জ ব্যান্ড ওয়াইফাই ৬ই নামে পরিচিত হবে। এ বছরের মধ্যেই ওয়াইফাই ৬ই সমর্থনযোগ্য ডিভাইস বাজারে পাওয়া যাবে বলছে গবেষকগন।

ওয়াইফাই ৬ কি ?

বায়ু মাধ্যমে ওয়েভ বা তরঙ্গ সম্প্রচারের মাধ্যমে ওয়াইফাই ওয়্যারলেস প্রযুক্তি কাজ করে। সম্প্রচারিত ওয়েভ বর্নালী এর কতগুলো নির্দিষ্ট ভাগ রয়েছে। এর মধ্য বর্তমানে ওয়াইফাই রাউটারগুলোতে ২.৪ গিগাহার্জ ও ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ড ব্যবহার করা হচ্ছে। এর সাথে এখন আরো ১টি ব্যান্ড ৬ গিগাহার্জ যুক্ত হচ্ছে।

ব্যান্ড নির্ধারক ২.৪ গিগাহার্জ বড় অঞ্চল জুড়ে কভারেজ দিতে পারে। অপরদিকে ৫ গিগাহার্জ ও ৬ গিগাহার্জ দ্রুত সময়ের মধ্যে তথ্য স্থানান্তর করতে পারে।

বর্তমান সময়ের ব্যান্ডগুলো তথ্য স্থানান্তরের ক্ষেত্রে বায়ু মাধ্যমে যতটুকু জায়গা দখল করতে পারে ৬ গিগাহার্জ ব্যান্ড এর চেয়ে প্রায় ৪ গুন জায়গা দখল করতে পারে।

ওয়াইফাই ৬ এর গতি কি বেশি ?

৬ গিগাহার্জ ও ৫ গিগাহার্জ এর মধ্যে প্রযুক্তিগত দিক থেকে তেমন পার্থক্য নেই। ব্যান্ড ২টির গতি প্রায় একই। ওয়াইফাই ৬ থেকে ৯ জিবিপিএস পর্যন্ত গতি পাওয়া যাবে।

তবে ৬ গিগাহার্জ ব্যান্ড তথ্য আদান প্রেরনের জন্য ৫ গিগাহার্জ এর তুলনায় বেশি চ্যানেল ব্যবহার করে। ফলে একই সাথে একই সময়ে একাধিক ডিভাইস থেকে তথ্য আদান প্রদান এর ক্ষেত্রে একটির সাথে অন্যটির কোনরূপ সংঘর্ষ হয় না।

রাউটার এর ক্ষেত্রে ওয়াইফাই ৬ এর ভূমিকাঃ

একই সাথে একাধিক ডিভাইস ১টি ওয়াইফাই রাউটার এ সংযুক্ত করলে কিছু ডিভাইস এর ক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক ড্রপ হতে দেখা যায়। এর কারন একাধিক ডিভাইস সংযুক্ত করার মত রাউটারগুলোতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক চ্যানেল থাকে না। ওয়াইফাই ৬ এই সমস্যা দূরীকরণে সহায়তা করতে পারে।

ওয়াইফাই ৬ ব্যান্ড বর্নালীতে সর্বাধিক ৭টি ডিভাইসে একই সাথে একই সময়ে ওয়াইফাই স্ট্রিম করা যাবে। ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন ওয়াইফাই ৬ ব্যান্ডে ১২০০ মেগাহার্জ বর্নালী উন্মোক্ত করবে। যেখানে পূর্বের ব্যান্ডগুলোতে ৪০০ মেগাহার্জ বর্নালী উন্মোক্ত ছিল।

ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন কর্তৃক ওয়াইফাই ৬ উন্মোক্ত হলে প্রথম দিকে যুক্তরাষ্ট্রে এর সুবিধা পাওয়া যাবে। ইউরোপে এই সুবিধা পেতে হলে ইউরোপীয় কমিশনের অনুমতির অপেক্ষা করতে হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।