সিসি ক্যামেরা কি? কেন?

বাসা, অফিস বা ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান স্থান যেমনই হোক, সেখানের অন্য যেকোন সুবিধাদির পূর্বে যে কথাটি আসে তা হচ্ছে নিরাপত্তা, যার জন্য অনেকেই সিসি ক্যামেরা কিনেন। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারলে বাসা, অফিস বা ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান অন্য সকল সুবিধা হুমকির সম্মুখিন হবে।

কোন স্থানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে নিরাপত্তার লোক নিয়োগ করা যেতেই পারে। কিন্তু স্থানটি যদি বড় হয় তাহলে ১/২ জনের পক্ষে পুরো স্থানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা কষ্টকর হয়ে পড়ে। এছাড়া তাদের অবসরের সময় নিরাপত্তা ব্যবস্থা দুর্বল হয়ে পড়তে পারে।

এসব সমস্যার সমাধানে নিরাপত্তার লোক এর সাথে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে সিসি ক্যামেরা। এটি বাসা, অফিস বা ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় বাড়তি চোখ হিসেবে কাজ করতে পারে। এই চোখ কখনও ঘুমায় না। যা দেখে সব তার মেমোরিতে সংরক্ষন করে রাখে।

তো সাধারনভাবেই প্রশ্ন আসতে পারে এই সিসি ক্যামেরা কি ? এটি কেন কিনব ? কোন স্থানের জন্য কেমন সিসি ক্যামেরা প্রয়োজন ? চলুন জেনে নেওয়া যাক এ বিষয়গুলো।

সিসি ক্যামেরা কি ?

সিসি ক্যামেরার পূর্ণরূপ হল ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। একে ক্লোজ সার্কিট টিভি ক্যামেরা বা সিসি টিভি ক্যামেরাও বলা হয়ে থাকে। এটি মূলত সচল অবস্থায় সবসময় ভিডিও ধারন করতে থাকে। এতে মেমোরি থাকা সাপেক্ষে ভিডিও ধারনের সাথে সাথে সংরক্ষনও করে রাখতে পারে।

সংরক্ষনের মেয়াদ মেমোরির আকার অনুসারে ১ দিন থেকে ১ বছর বা তারও বেশি সময় হতে পারে। সিসি ক্যামেরাতে যে ভিডিও ধারন হয় তা রিয়েল টাইমে টিভি, মনিটর বা অন্য যে কোন ডিসপ্লেতে দেখা যায়।

অর্থ্যাৎ বাসা বা অফিস এর চারদিকে ৪ টি সিসি ক্যামেরা লাগালে এক স্থানে বসেই চতুর্দিকে পর্যবেক্ষন করা যাবে।

বর্তমানে বাজারে ইন্টারনেট সুবিধাসহ ওয়াইফাই ক্যামেরা পাওয়া যায়। এর সাহায্যে বিশ্বের যেকোন স্থানে বসে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সিসি ক্যামেরার ভিডিও দেখা যায়।

সিসি ক্যামেরা কেন কিনব ?

  • সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে আপনার বা নিরাপত্তার লোক এর অবর্তমানেও আপনার বাসা, অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সার্বক্ষনিক পর্যবেক্ষন নিশ্চিত হবে।
  • বাসা, অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের চতুর্দিকে একই স্থানে বসে পর্বেক্ষন করা যাবে।
  • কোন আনাকাঙ্খিত ঘটনার বিশ্লেষনে পূর্বের সংরক্ষিত ভিডিও ফুটেজ যাচাই করা যাবে।
  • ওয়াইফাই ক্যামেরার মাধ্যমে বিশ্বের যেকোন স্থানে বসে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সিসি ক্যামেরার ভিডিও দেখা যাবে

Dahua CCTV Camera Package

কোন স্থানের জন্য কেমন সিসি ক্যামেরা প্রয়োজন ?


বুলেট সিসি ক্যামেরাঃ

এই সিসি ক্যামেরা দেখতে বুলেট এর মত। এটি সাধারণত লম্বায় দীর্ঘ কোন স্থান যেমন রাস্তায় ব্যবহার করা হয়। এটিতে স্টিলের একটি আবরণ রয়েছে। যা এটিকে করেছে ওয়েদারপ্রুফ। তাই এই সিসি ক্যামেরা বাড়ির বাইরে দরজা বা জানালার দেওয়ালে কিংবা ছাদ থেকে নিচের দিকে মুখ করে লাগানো যায়।

ডোম সিসি ক্যামেরাঃ

এই সিসি ক্যামেরাটি বদ্ধ স্থানে ব্যবহার করার জন্য উপযুক্ত। বাসা, অফিস, রেস্তোরা এর ভিতরে ব্যবহার করা যাবে এটি। এর আকৃতি গোলাকার। এই ধরনের ক্যামেরা সাধারনত একটি নির্দিষ্ট পরিমাপে ঘুরতে পারে। এই সিসি ক্যামেরার সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্যটি হল, এর ক্যামেরা কোন দিকে ঘুরছে তা দেখে সহজে বোঝা যাবে না।

ই মাউন্ট সিসি ক্যামেরাঃ

ই মাইন্ট সিসি ক্যামেরার আহায্যে কোন স্থানের রিয়েল টাইম ফুটেজ দেখার সময় জুম ইন বা জুম আউট করা যায়। এই ক্যামেরায় বিশেষ ধরনের লেন্স ব্যবহার করা হয়। ৩০/৪০ ফুট দুরবর্তী স্থান পর্যন্ত কাজ করতে পারে এটি।

নাইট ভিশন সিসি ক্যামেরাঃ

ইনফ্রারেড প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে এই ক্যামেরাতে। ইনফ্রারেড প্রযুক্তির মাধ্যমে এই সিসি ক্যামেরা অল্প আলোতেও ভাল কোয়ালিটির ভিডিও ধারনে সক্ষম। দিনের আলোতে রঙ্গিন এবং রাতে সাদাকালো ভিডিও ধারন হয় এই ক্যামেরায়। সাধারনত ফ্যাক্টরি, গোডাউন যেখানে দিন ও রাত সবময়ই সিসি ক্যামেরার প্রয়োজন এসব স্থানে এই ক্যামেরা বসানো যেতে পারে।

পিটিজি সিসি ক্যামেরাঃ

প্যান টিল্ট জুম এর সংক্ষিপ্ত রুপ হচ্ছে পিটিজি। অর্থ্যাৎ এই ক্যামেরায় একই সাথে তিনটি ফিচার কাজ করবে। যে কোন স্থানের সম্পূর্ন কভারেজ দিতে সক্ষম এই ক্যামেরা। ম্যানুয়ালি প্যান (ডানে বামে সড়ানো), টিল্ট (উপর নিচ করা), জুম (জুম ইন এবং জুম আউট করা) করা যাবে এর সাহায্যে।

ওয়্যারলেস সিসি ক্যামেরাঃ

এই ক্যামেরা সেটাপের সাহায্যে দূরবর্তী স্থানে বসে সিসি ক্যামেরার ভিডিও দেখা যাবে। প্রতিষ্ঠান ভেদে আলাদা আলাদা মডেল এর ক্যামেরার ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা স্মার্টফোন অ্যাপও রয়েছে। এটির ডাটা ট্রান্সফার এর জন্য কোন তার এর প্রয়োজন হয় না। তবে ক্যামেরাটি সচল রাখতে পাওয়ার ক্যাবল এর সংযোগ দিতে হবে।

Hikvision Smart IP 360° Camera Ezviz

সিসি ক্যামেরা সেটাপের বিভিন্ন অংশঃ

সিসি ক্যামেরার একটি সম্পূর্ণ সেটাপে যে জিনিসগুলো থাকে-

  • সিসি ক্যামেরা
  • ডিজিটাল ভিডিও রেকোর্ডার (ডিভিআর)
  • হার্ডডিস্ক/মেমোরি কার্ড
  • মাউস
  • সিসি ক্যামেরা পাওয়ার ক্যাবল
  • সিসি ক্যামেরা কানেক্টর
  • মনিটর/টিভি/ডিসপ্লে
  • ইন্টারনেট কানেকশন (ওয়াইফাই/ইন্টারনেট ক্যামেরার ক্ষেত্রে)

সিসিটিভি ক্যামেরা কেনার ক্ষেত্রে বিবেচ্য বিষয়ঃ

কোথায় কি কাজে ক্যামেরা ব্যবহার হবে তার সাথে সামঞ্জস্য রেখে যেকোন ক্যামেরাই কেনা যেতে পারে। তবে কেনার সময় ক্যামেরার লেন্স ও সেন্সর এর দিকে খেয়াল রাখাটাও জরুরি, কেননা ভাল মানের লেন্স ও সেন্সর ভাল মানের ও স্পষ্ট ভিডিও ধারনে সক্ষম।

ভাল মানের সিসি ক্যামেরা কিনতে ভিজিট করুন নির্ভরযোগ্য ধ্রুবক অল রাউন্ডার অনলাইন শপ এ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।