ফ্রিতে যেকোন বিশাল ফাইল ট্রান্সফার করুন

প্রতিদিন নিত্যনতুন হরেক কন্টেন্ট ইন্টারনেট দুনিয়ায় তৈরি হয়। শুধু এইসব কন্টেন্ট তৈরি হলে তো হবে না তা ট্রান্সফারও করতে হবে।

এ সকল কন্টেন্ট আকারে বড় হলে ট্রান্সফার করতে আমাদের সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। কিন্তু এই সমস্যার সমাধান রয়েছে। বড় ফাইল ট্রান্সফারের সুবিধা অনেক প্রতিষ্ঠান দিয়ে থাকে। তবে সকল প্রতিষ্ঠান তা ফ্রিতে প্রদান করে না। চলুন জেনে নিই কিভাবে বড় ফাইল ফ্রিতে ট্রান্সফার করতে পারবো।

WeTransfer অনলাইনে বড় ফাইল ট্রান্সফারের সুবিধা দিয়ে থাকে। আর তা সম্পূর্ণ ফ্রিতে। এটির মাধ্যমে খুব সহজে ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন। এটির মাধ্যমে ফাইল শেয়ার করার জন্য আপনাকে কোনো ধরণের রেজিস্ট্রেশন করা লাগবে না।

কিভাবে এটি কাজ করে?


এটি ডেক্সটপ এবং মোবাইলে ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু ফাইল ট্রান্সফার করার পদ্ধতি দু জায়গায় আলাদা।

ডেক্সটপের মাধ্যমে ফাইল শেয়ার:


১. WeTransfer ওয়েবসাইটে চলে যান এবং স্কিনের বাম দিকে একটা ছোট বক্স পাবেন।

২. তারপর Add your files এ ক্লিক করুণ এবং যে ফাইলটি পাঠাবেন তা সিলেক্ট করুণ।

৩. তারপর যাকে পাঠাবেন তার ইমেইল যোগ করুণ। আরো একজনের ইমেইল যোগ করতে পারবেন।

৪. আপনার ইমেইল দিতে হবে। ইচ্ছে করলে তার সাথে মেসেজও লিখে দিতে পারেন।

৫. তারপর Transfer এ ক্লিক করুণ এবং তা হয়ে যাবে।

যার কাছে পাঠিয়েছেন তার কাছে ইমেইলের মাধ্যমে ডাইনলোড বাটন চলে যাবে। তাতে ক্লিক করে WeTransfer সার্ভার থেকে ডাইনলোড করতে পারবে খুব সহজে।

মোবাইলের মাধ্যমে ফাইল শেয়ার:


১. প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোরথেকে অ্যাপটি ডাইনলোড করে নিন।

২. এটি ইন্সটল করার পর choose files from file explorer ক্লিক করুণ এবং যা পাঠাতে চান তা সিলেক্ট করুণ।

৩. তারপর যাকে পাঠাবেন তার ইমেইল যোগ করুণ।

৪. আপনার ইমেইল যোগ করুণ সাথে মেসেজও লিখতে পারেন। তারপর ট্রান্সফারে ক্লিক করুণ।

বিদ্র: WeTransfer সার্ভারে ১ সপ্তাহ ফাইল সেইভ থাকে। এরপর তা ডিলিট হয়ে যাই।

কোন ধরণের ফাইল সাপোর্ট করে?


WeTransfer এ সকল ধরণের ফাইল সাপোর্ট করে। নিশ্চিন্তে সকল ফাইল ট্রান্সফার করতে পারেন।

ফাইল সাইজ এবং রিসিভার লিমিট


ফ্রি ভার্সনে আপনি ২ জিবি পর্যন্ত ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন। তা ২০ জনকে পাঠাতে পারবেন।

যদি তাতে না হয় তবে প্রো ভার্সন ব্যবহার করতে পারেন। এতে ২০ জিবি পর্যন্ত ফাইল ট্রান্সফার করা যায় এবং ২০ থেকে ১০০ জনকে তা পাঠাতে পারবেন।

প্লাস সার্ভিসের সুবিধা


প্লাস সার্ভিস ব্যবহার করলে যেমন ফাইল ট্রান্সফার সাইজ বৃদ্ধি পাবে, তেমনি পাবেন ১০০ জিবি ফ্রি স্টোরেজ। সাথে আরো অনেক সুবিধা।

প্লাস সার্ভিসের জন্য ১২০ ডলার বা ৯ হাজার ৭০০ টাকা প্রতি বছর খরচ করতে হবে।

ইরফান

জানতে এবং জানাতে ভালোবাসি।

আপনার মতামত ...