ডেবিট-ক্রেডিট কার্ডের A টু Z

 

কারেন্ট একাউন্ট (ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের নামে খোলা একাউন্ট) | সেভিংস একাউন্ট (ব্যক্তি নামে খোলা একাউন্ট) এই দুই ধরণের একাউন্টের সাথে আপনি ডেবিট কার্ড + চেকবই পাবেন (মাস্টার বা ভিসা লোগো সহ) বাৎসরিক একটা চার্জ এর জন্য আপনাকে দিতে হবে, বিভিন্ন ব্যাংক ভেদে এর চার্জ নির্ধারণ। (ডেবিট কার্ড দিয়ে আপনার একাউন্টে যেই পরিমান টাকা জমা রাখা ওই টাকা আপনি নগদ উঠান সহ কেনাকাটা করতে পারবেন)

অর্থাৎ, আপনার একাউন্টে টাকা থাকলেই শুধু মাত্র ডেবিট কার্ড দিয়ে তুলতে পারবেন, টাকা না থাকলে পারবেন না।
আর ক্রেডিট কার্ড দিয়ে সবসময়ই (থাকা+না থাকা) তুলতে পারবেন।
ডেবিট কার্ড পাওয়া ইজি। ইনফ্যাক্ট যে কোন ধরনের সেভিংস একাউন্ট খুললেই ডেবিট কার্ড দেয়।
ক্রেডিট কার্ড পেতে হলে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করতে হয়।

ক্রেডিট কার্ডের জন্য আপনাকে কিছু নিয়মের মাঝে থেকে তা পেতে হবে, ক্রেডিট কার্ড ব্যাংক গুলা প্রদান করে কয়েকটা প্রকারভেদে, যেমন:

১| চাকুরীর ব্যাসিক বা মূল বেতন এর উপর নির্ভর করে চলতি মাস সহ বিগত ৬’মাসের বেতনের স্টেটমেন্ট এর উপর নির্ভর করে।

২| যদি আপনার প্রতিষ্ঠান থাকে সেই প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক একাউন্টের স্টেটমেন্ট এর উপর বিবেচনা করে।

৩| আপনি ব্যাংকে লেনদেন করেন সেই ব্যাংকে যদি আপনার ফিক্সেড ডিপোজিট বা আমরা যাকে বলি এফ. ডি.আর. বা ডি.পি.এস. যা মাসে মাসে জমা রেখে সঞ্চয় হয় এটার এগেনেস্টে আপনাকে ৮০% থেকে সর্বোচ্চ ৯০% ক্রেডিট বা লোন দিবে একটা নির্দিষ্ট একাউন্টের মাধ্যমে যাতে আপনি একটি এটিএম কার্ড ও চেকবই পাবেন যার নাম ক্রেডিট কার্ড। (আপনাকে ঠিক যেই পরিমান ক্রেডিট বা লোন ওই কার্ডে দিবে ঠিক তত পরিমান আপনি কেনাকাটা বা নগদ উত্তোলন করতে পারবেন আবার ওই টাকা সময়ের মধ্যে আপনাকে পরিশোধ করতে হবে, যদি ক্রেডিট বা লোন পরিমান অতিক্রম করে তবে আপনি আর টাকা উত্তোলন বা কেনাকাটা করতে পারবেনা)

*আমার যতটা জানা আছে তাই জানালাম, হয়তো তথ্যের মাঝে ভুল থাকতে পারে, আরও বিস্তারিত আপনি যেকোনো ব্যাংকে গেলে আপনাকে আরও পরিষ্কার ধারণা দিতে পারবে।

মেহেদী হাসান পলাশ

Mehedi Hasan Polash ভালোবাসি প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে ও জানাতে, এই ভালো লাগা থেকেই যোগ দেওয়া প্রযুক্তি ব্লগিংয়ে। পাশে পেয়েছি টেকমাস্টার ব্লগ কমিউনিটি, দিকনির্দেশনা দিতে শ্রদ্ধেয় মেজবা উদ্দিন ভাই। ব্লগিং জগতের সবচেয়ে বড় যে পাওয়া তা হচ্ছে তথ্য, ব্লগিং এর জন্য প্রতিদিনই নিজেকে বেশি বেশি তথ্য জানতে হচ্ছে যা অনেকটা নেশার মত হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর জীবনটাই তো শেখার জন্য, জানার জন্য। বর্তমানে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে মার্কেটিং ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস উভয় বিষয়ে (বিবিএ) অধ্যায়নরত। প্রয়োজনে যোগাযোগ - মেইলঃ mpolash@icloud.com গুগল প্লাস

3 thoughts on “ডেবিট-ক্রেডিট কার্ডের A টু Z

  • অক্টোবর 21, 2018 at 11:52 পূর্বাহ্ন
    Permalink

    আপনার প্রতিষ্ঠানের কি ওয়েবসাইট আছে? আজকাল বেশিরভাগ মানুষই যে কোনো তথ্য অনলাইনে খোঁজ করেন !

    তাই আপনার ব্যবসা কিংবা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত তথ্য মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্য একটি ওয়েবসাইট খুবই প্রয়োজনীয় !

    ওয়েবসাইট তৈরি এবং ডোমেইন ও হোস্টিং সম্পর্কিত যে কোনো তথ্য, সেবা কিংবা পরামর্শের জন্য আমরা আছি আপনার পাশে !

    Reply
  • অক্টোবর 17, 2018 at 7:37 অপরাহ্ন
    Permalink

    অনেক সুন্দর একটি পোস্ট, আপনাদের পোস্ট কেমন হয় সেটা সবাই যানে- অসাধরন ।

    Reply
  • অক্টোবর 8, 2018 at 1:52 অপরাহ্ন
    Permalink

    কোন কোন ব্যাঙ্ক এ ক্রেডিট কার্ড করা যায় জানালে উপকার হতো। আমি ক্রেডিট কার্ড করতে চায়

    Reply

আপনার মতামত ...