bKash অ্যাপ এ নতুন ধাচের প্রতারনা

প্রতিদিন ৫০০ কোটি টাকার বেশি লেনদেন হওয়া মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিক্যাশ সময়ের সাথে সাথে ডিজিটাল হয়েছে। এখন মোবাইল সিম ছাড়াই অ্যাপ এর মাধ্যমে লেনদেন করতে পারা যায়।

মোবাইল থেকে মোবাইলে টাকা পাঠানো, মোবাইল রিচার্জ, ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট সহ ৫০,০০০ আউটলেটে পে করার সুবিধার থাকায় এর বিকল্প খুব কমই আছে। তবে সুবিধার পাশাপাশি আগের মতই প্রতারনার সুযোগ থাকছে আগের থেকেও বেশি। আজকে দেখবো, বিক্যাশ নিয়ে প্রতারকদের প্রতারনার ধরন।

রংপুরের টেক উদ্দ্যোক্তা ও ওয়েব ডেভেলপার আরিফুর ইসলাম শাওন এর অভিজ্ঞতাঃ

একটু আগে একটা বাংলালিঙ্ক নাম্বার (01986806461) থেকে আমাকে ফোন দেয়া হইছিল। দিয়ে বলতেছে বিকাশ থেকে অমুক (নাম মনে নাই) বলতেছি, আপনার এনআইডি এর আজেইন্সটে একের অধিক আক্যাউন্ট বিকাশ অ্যাকাউন্ট থাকলে সেগুলো বন্ধ করার জন্য আমরা ভেরিফিকেশন কার্যক্রম শুরু করেছি।

আপনার নাম বলেন, বললাম। আপ্নার বাবার নাম বলেন, বললাম। এবার বলে, বিকাশ অ্যাকাউন্ট আগে যারা ওপেন করেছে তারা ৪ ডিজিটের নাম্বারে পিন কোড দিয়েছিলো। এখন সেফটির জন্য বিকাশ থেকে ৫ ডিজিটের নাম্বার করা হচ্ছে। সো, আপনার(আমার) বর্তমান বিকাশ পিনের শেষের ২ ডিজিট বলতে হবে।

আমি রেগে পুরাই আগুন, বলে কি? আমি বলছি আমার পিন কোড নিয়ে কোন কথা বলার অধিকার বিকাশ দিছে আপনাকে? কোন অপারেটর তার সাবসস্ক্রাইবারের থেকে এভাবে পিন চাইতে পারে না, সেটা হোক শেষ ২/১ ডিজিট।

সে আমাকে বিভিন্ন ভুলভাল বুঝানোর ট্রাই করলো, আর আমিও নাছোড়বান্দা। কোনভাবেই বলি নাই। শেষে সে বলতেছে দেখে আপনার ফোনে অ্যাপ ভেরিফিকেশনের কোড গেছে, সেটা বলেন। ম্যাসেজ আসলো, এবং বুঝলাম অ্যাপটাকে টার্গেট করে তারা অনেক বড় প্লান করে ফেলছে।

ফোনসহ আপনার বিকাশ নাম্বার কারও কাছে থাক বা না থাক, ধরেন, আপনি ভুলে সেই ভেরিফিকেশন কোড বলেও ফেললেন। কিন্তু, একটা বারের জন্যও আপনার অরিজিনাল বিকাশ পিনের একটা ডিজিট বললেন না। এটা করে বসলে আপনি ফুলি GONE!

অ্যাপ না থাকার টাইমে, ফোন আর সিম সাথে থাকতে হতো, কিন্তু অ্যাপ আসার ফলে সিকিউরিটি হোল তৈরি হইছে।

আমি ফোন কেটে দেয়ার পর আরো ২টা IP নাম্বার থেকে কল দিসিলো, নাম্বার গুলো আপনাদের সুবিধার্তে দিলাম, নোট রাখিয়েনঃ +12345678916247, +971537894148। উপরেরটা সহ এই ২টা নাম্বার পারলে ব্লকলিস্টে রেখে দেন এখনি।

বেচারার ফোন কেটে দিয়ে আমি বিকাশের অফিসিয়াল নাম্বারে (16247) কথা বলি। তারা জানায়, এমনসব ভেরিফিকেশনের জন্য বিকাশ কখনই ফোন দিবে না। আর এসব কল বা এসএমএস থেকে সতর্ক থাকার জন্য বলা হইছে। কারণ, এসএমএসে নাম্বার মাস্কিং করে খুব সহজেই লিখে রাখা যায় “bKash”। যা আমাকে অ্যাপ ভেরিফিকেশন কোডের এসএমএসে দেখাইছিল।

প্রয়োজনে বিকাশের অফিসিয়াল নাম্বারে কল দিয়ে কনফার্ম হবে – https://www.bkash.com/support/contact-us

সুতরাং, সবাই সাবধান থাকবেন, আপনার পরিচিতদেরকে তথ্যটি জানিয়ে দিতে ভুলবেন না।

 

এক্ষেত্রে এক বিবৃতিতে বিক্যাশ থেকে বলা হয়

আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন নাম্বার কিংবা অ্যাপ ভেরিফিকেশন কোড কখনোই কাউকে দিবেন না।
মনে রাখবেন, বিকাশ কখনোই এসব তথ্য জানতে চাইবে না। যেকোনো তথ্য যাচাই করতে বিকাশ হেল্পলাইন 16247 নাম্বারে কল করুন

লাকি এফএম

টেক-আসক্ত লাকিএফএম টেকমাষ্টার ব্লগের একজন উপ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রশাসক। পাশাপাশি তথ্য প্রযুক্তি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ধ্রুবক অল রাউন্ডার এ কাজ করছেন। যোগাযোগঃ ফেসবুক টুইটার গুগল প্লাস ইমেইল

Leave a Reply

Your email address will not be published.