সাশ্রয়ী মূল্যে হুয়াওয়ে পি৩০ লাইট

হুয়াওয়ে পি৩০ সিরিজ দিয়ে প্রযুক্তি প্রেমিদের বিশেষ নজর কেড়ে নিয়েছে। হুয়াওয়ে পি৩০ সিরিজের কম দামী সংস্করণ হলো হুয়াওয়ে পি৩০ লাইট। চলুন জেনে নেওয়া যাক, হুয়াওয়ে পি৩০ লাইট এর পুরো স্পেসিফিকেশন।

ডিসপ্লেঃ 

ফোনটিতে ৬.১৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। এর রেজুলেশন ১০৮০*২৩১২ পিক্সেল এবং রেশিও ১৯.৫ঃ৯। স্ক্রিন থেকে বডির রেশিও ৮৪.২%।

চিপসেটঃ

এতে হুয়াওয়ের নিজস্ব কিরিন ৭১০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এর জিপিউ মালি-জি৫১ এমপি৪।

র‍্যাম ও স্টোরেজঃ

ফোনটিতে ৬ জিবি র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ ব্যবহার করা হয়েছে। যা মাইক্রো এসডি কার্ড দিয়ে ৫১২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। মেমরি কার্ড সিম ২ স্লটে ব্যবহার করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ আকর্ষণীয় ফিচারে হুয়াওয়ে পি৩০

ক্যামেরাঃ

ফোনটির পেছনে রয়েছে থ্রিপল ক্যামেরা। মূল ক্যামেরাটি ২৪ (অ্যাপার্চার এফ/১.৮) মেগাপিক্সেলের ওয়াইড লেন্স আর অন্য দুটি হলো ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা ওয়াইড ও ২ (অ্যাপার্চার এফ/২.৪) মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। এটি দিয়ে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ৩২ (অ্যাপার্চার এফ/২.০) মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এটি দিয়েও ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

ব্যাটারি ও ওএসঃ

এতে ৩ হাজার ৩৪০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। রয়েছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট ব্যাটারি চার্জিং প্রযুক্তি।

এর অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ পাই এবং হুয়াওয়ের নিজস্ব ইএমইউআই ৯.০ ব্যবহার করা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ স্যামসাং ও আইফোনের সাথে পাল্লা দিতে হুয়াওয়ে পি৩০ প্রো

অন্যান্যঃ

ব্যবহারকারীর তথ্যের সুরক্ষার জন্য ফোনটির পেছনে রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। হেডফোন জ্যাক রয়েছে।

রঙ ও দামঃ

ফোনটি বাজারে ব্লু, মিডনাইট ব্ল্যাক ও পার্ল ওয়াইট রঙে পাওয়া যাবে।

২ এপ্রিল দেশে উন্মোচিত হবে এবং ৩ এপ্রিল থেকে প্রি-বুকিং করা যাবে। দেশের বাজারে দাম কেমন হবে তা জানানো হয়নি।

ইরফান

জানতে এবং জানাতে ভালোবাসি। তবে প্রযুক্তি নিয়ে জানার আগ্রহটা আরো বেশি তাই নিজে যা জানি তা তুলে ধরি টেকমাস্টার ব্লগ এবং টেকি নাউ। প্রয়োজনে যোগাযোগঃ ফেসবুক টুইটার বিশেষ প্রয়োজেনে ইমেইল hi.mdirfan07@outlook.com

Leave a Reply

Your email address will not be published.